করোনা সংকট মোকাবিলায় অন্যান্য রাজ্যগুলির মত এই রাজ্যও লকডাউনের পথেই হেঁটেছে। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে প্রথম থেকেই রেশন দুর্ণীতির অভিযোগ তুলে আসছিল বিজেপি। দিন কয়েক আগে বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ করেন চুঁচু়ড়ার বিধায়কের অফিসে প্রচুর পরিমাণে মজুত রয়েছে সরকারি চাল। তিনি আরও বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী লকডাউনের এই সময় গরীবদের জন্য যে চাল পাঠাচ্ছেন তা মজুত করে রেখে খারাপ চাল দেওয়া হচ্ছে । লকেট চট্টোপাধ্যায়ের এই অভিযোগের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার। তিনি সরাসরি লকেটকে হুঁশিয়ারি দেন। বলেন লকেট চট্টোপাধ্যায় যদি অভিযোগ প্রমান করতে না পারেন তাহলে তিনি তাঁর বিরুদ্ধে আগামী দিনে মান হানির মামলা করবেন। 

তৃণমূল কংগ্রেসের চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত বলেন, কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দেশ। অনেক মানুষ খেতে পাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে বিজেপি রেশন নিয়ে রাজনীতি করছে বলেও তাঁর অভিযোগ। তাঁর আরও অভিযোগ মানুষ যখন খেতে পাচ্ছে না তখন লকেট সাজগোজ করে রাজনীতি করতে নেমেছেন।তৃণমূল কংগ্রেস সর্বস্তরের নেতাদের সাহায্য নিয়ে গরীব ও পিছিয়ে পড়া মানুষদের খাবর পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে সমস্ত মানুষের কাছে খাবার সরবরাহ করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন অসীত মজুমদার। আর সেই জন্যই দলের নেতা  কর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের পয়সায় চাল, আলু কিনে মজুত করে রাখা হয়েছে দলীয় কার্যালয়ে। 

অসিত মজুমদার এখানেই থেমে থাকেননি। হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়কে তিনি সরাসরি হুঁশিয়ারি দেন। তিনি বলেন লকেটের যদি সাহস থাকে তাহলে অবশ্যই তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করতে পারেন। আর লকেট যদি অভিযোগের সত্যতা প্রমান করতে না পারেন তাহলে তিনি আগামী দিনে আদাল খুললেই বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন।