দিঘা মন্দারমনি উপকূলবর্তী এলাকা সহ সারা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে বৃহস্পতিবার মাঝরাত থেকেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এদিকে অনেকেই এক ঘেয়ে জীবন থেকে নিষ্কৃতি পেতে নতুন বছরে পরিবার নিয়ে ছুটি কাটাতে এসেছেন এখানে। একদিকে শীতকালে নেই ঠান্ডা, তার উপর অসময়ের এই বৃষ্টি শুরু হয়েছে।  সব মিলিয়ে সমুদ্রের কাছে ঘুরতে এসেও কার্যত বেহাল অবস্থা দিঘার পর্যটকদের। 

 

 

আরও পড়ুন, ঠান্ডা থেকে বাঁচতে গিয়ে ঘটল বিপর্যয়, বেঘোরে মত্যু দশ বছরের বালকের


শুক্রবার দিঘায়, সকালের দিকে বৃষ্টিপাতের পরিমান ছিল ৪.৪ মিলিমিটার। এখন সেটা ক্রমশ আরও বেড়ে চলেছে। তার উপর শুক্রবার  রাজ্য়ের বিভিন্ন জেলায় তাপমাত্রার বেশ বড় সড় পরিবর্তন হয়েছে। দিঘার তাপমাত্রা এই মুহূর্তে ১৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  বৃষ্টির সঙ্গে ছিল হালকা ঝড়ো বাতাস। শুক্রবার সকাল আটটার পর থেকে আকাশ মেঘলা থাকলেও কোন কোন জায়গায় রোদ উঁকি দিয়েছে মাঝে মাঝে। ঘন্টা তিনেক মোটামুটি বৃষ্টি বন্ধ হলেও আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিল। তারপর আবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে, আকাশ আবার ঘন কালো মেঘে ঢেকে যায়। শুরু হয় অঝোর ধারায় ভারি বৃষ্টি।  

আরও পড়ুন, বজ্রবিদ্যুৎ সহ শিলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রাজ্য়ে, পাহাড়েও হতে পারে তুষারপাত

একদিকে শীতের আমেজ তো একেবারেই নেই। তার উপর এই বৃষ্টি দিঘায় আসা পর্যটকেদের আনন্দে জল ঢাললো। তার উপর সমুদ্রের পাড়ে ভীড় কমছে দেখে দোকানিরাও ঝাপ টেনে বাড়ি ফিরেছেন। দিঘা, মন্দারমনি, তাজপুর সহ সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকায় বৃষ্টি হওয়ার জন্য় সকাল থেকেই  পর্যটকরা গৃহবন্দি হয়েছিলেন। পরে বৃষ্টি থামায় সমুদ্রমুখী হয়েছেন অনেকে। কিন্তু ঠাণ্ডা থাকার জন্য সমুদ্রস্নানে নামেননি অনেকেই। ঝলমলে আবহাওয়া দেখে যারা গতকাল দিঘা এসেছিলেন আজকের বৃষ্টির অনেকটাই বিমর্ষ  করেছে তাদেরকে।