ফের ভিনরাজ্যে বেড়াতে গিয়ে বাঙালি পর্যটকদের মৃত্যু। এবার কেরলে বেড়াতে গিয়ে পথ দুর্ঘটনায় মারা গেলেন তিন বোন। গুরুতর জখম আরও দুই বোন।  ঘটনায় শোকের ছায়ায় উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁয়। প্রশাসনের কাছে মৃতদেহগুলি ফিরিয়ে আনার আরজি জানিয়েছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা।

কেউ বা সপরিবারে, তো কেউ আবার বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে, পুজো মিটতেই বেড়াতে বেরিয়ে পড়েছেন অনেকেই।  চার বোনকে সঙ্গে নিয়ে কেরলের বেড়াতে গিয়েছিলেন বনগাঁর শোভা বিশ্বাসও। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, গত ১৫ অক্টোবর হাওড়ার শালিমার থেকে কেরলের তিরুঅনন্তপুরমগামী ট্রেনে ওঠেন শোভা বিশ্বাস। সঙ্গে ছিলেন তাঁর চার বোন গীতা, মিতা, লক্ষ্মী ও  কাকলি। শুক্রবার রাতে ফোনে বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলেছেন শোভা বিশ্বাস। বাড়ির লোকেরা বক্তব্য, শনিবার সকালে তাঁরা খবর পান, কেরলের দুর্ঘটনার কবলে পড়েছেন পাঁচ বোন। মারা গিয়েছেন শোভা বিশ্বাস, গীতা রায় ও মিতা বর্মন। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি লক্ষ্মী হালদার ও কাকলি বিশ্বাস।  তাঁদের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনা জানাজানি হতেই শোকের ছায়া নেমেছে বনগাঁর টেংরা গ্রামের।

কিন্তু কীভাবে দুর্ঘটনা ঘটল? তিরুঅনন্তপুরমে পৌঁছানোর পর, একটি গাড়ি ভাড়া করে ঘুরতে বেড়িয়েছিলেন পাঁচ বোন। হাইওয়ে দিয়ে যখন যাচ্ছিলেন তাঁরা, তখন গাড়িটিকে একটি ট্রাক ধাক্কা মারে।  তিনবোনের মৃতদেহ দ্রুত ফিরিয়ে আনার জন্য প্রশাসনের দ্বারস্থ পরিবারের লোকেরা।