রেললাইনের উপর ফুটব্রিজের দাবি দীর্ঘদিনের। মঙ্গলবার সকালে ফের দুর্ঘটনা ঘটল দমদম স্টেশন লাগোয়া সিসিআর ব্রিজের কাছে। লাইন পেরোতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল দাদু ও নাতনির।  দমদম ও বেলঘড়িয়া স্টেশনে মাঝে দীর্ঘক্ষণ চলল অবরোধ। অবরোধের জেরে অফিস টাইমে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায় শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর মেনলাইন। চরম দুর্ভোগে পড়লেন নিত্যযাত্রীরা।  এমনকী, অবরোধের প্রতিবাদ করায় ট্রেনে ওঠে যাত্রীদের মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন: দাবি মতো পণ না মেলায় বিয়ের আসরে তাণ্ডব বরযাত্রীদের, হবু স্ত্রীকে 'লাথি' পাত্রের

বরানগরের তীর্থ ভারতী স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী জুঁই ধর। দমদমের ডাক্তারবাগান এলাকায় থাকে সে। রোজকার মতোই মঙ্গলবার সকালেও দাদুর সঙ্গে স্কুলের যাচ্ছিল ওই শিশুটি। রেললাইন পেরনোর সময়ে দুর্ঘটনা ঘটে দমদম স্টেশন লাগোয়া সিসিআর ব্রিজের কাছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বর্ধমানগামী একটি লোকাল ট্রেন ধাক্কায় মারে দাদু ও নাতনি। ঘটনাস্থলেই দু'জনেরই মৃত্যু হয়। এরপরই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। ফুটব্রিজের দাবিতে দমদম ও বেলঘড়িয়া স্টেশনের মাঝে অবরোধ শুরু করে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অবরোধে জেরে দীর্ঘক্ষণ শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর মেন লাইনে বন্ধ ছিল ট্রেন চলাচল। বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পড়ে একাধিক লোকাল ট্রেন। অফিস টাইমে চরম দুর্ভোগে পড়েন নিত্যযাত্রীরা।  একসময়ে ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙে তাঁদের। প্রতিবাদ করলে ট্রেনে ওঠে অবরোধকারীদের যাত্রীদের মারধরও করে বলে অভিযোগ। শেষপর্যন্ত রেল আধিকারিকদের আশ্বাসে ঘণ্টা তিনেক পর অবরোধ ওঠে যায়। তবে ট্রেন চলাচল এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি বলে জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুন: বিয়ের উপহার এক বস্তা পেঁয়াজ, কনেকে চমকে দিলেন বন্ধুরা

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে পরিত্যক্ত ব্যাগকে কেন্দ্র করে বোমাতঙ্ক ছড়িয়েছিল শিয়ালদহ থেকে বনগাঁগামী একটি লোকাল ট্রেনে।  মধ্যমগ্রাম স্টেশনে ট্রেনটি খালি করে চলে তল্লাশি। শেষপর্যন্ত অবশ্য পরিত্যক্ত ওই ব্যাগটি সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। তবে এই ঘটনার রাতে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় যাত্রীদের।