ঠিক যেন তাসের ঘর! বিকট শব্দ করে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল জলের ট্যাঙ্ক।  জলের তোড়ে ভেসে গেল ট্যাঙ্কের পার্শ্ববর্তী সীমানা পাঁচিল। আতঙ্ক ছড়াল বাঁকুড়ায়। ঘটনার প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানের জন্য কমিটি গঠন করার ঘোষণা করেছেন জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। 

গরমে পড়লে এলাকায় পানীয় জলের সংকট তীব্র হয়। বছর দুয়েক আগে বাঁকুড়ার সারেঙ্গায় ওই জলের ট্যাঙ্কটি তৈরি করেছিল জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তর। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে, বুধবার দুপুরে বিকট শব্দ শুনতে পান তাঁরা। গ্রামের পাশে  ফাঁকা জমিতে গিয়ে দেখেন, জলের ট্যাঙ্কের পিলারের একাংশ ভেঙে পড়েছে।  কিছুক্ষণ পর হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে ট্যাঙ্কটিও। ঘটনার পর জলের তোড়ে ভেসে যায় গোটা এলাকা। ভেঙে পড়ে ট্যাঙ্ক লাগোয়া সীমানা পাঁচিল। তুমুল আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তবে এই দুর্ঘটনায় কেউ হতাহত হননি বলে জানা দিয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের আশঙ্কা, সারেঙ্গার গড়গড়িয়া অঞ্চল ও বিক্রমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে বেশ কয়েকটি এলাকায় পানীয় জলের সংকট দেখা দেবে।

আরও পড়ুন: হাতির লেজ টেনে ধরলেন গ্রামবাসীরা, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

কিন্তু ট্যাংকটি ভেঙে পড়ল কী করে? স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ট্যাঙ্কটি যখন তৈরি করা হচ্ছিল, তখন নিম্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়। তারজেরেই এমন বিপত্তি ঘটল। বস্তত ট্যাঙ্কের পিলারে হাল্কা ফাটলও দেখা দিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। এদিকে ট্যাঙ্ক বিপর্যয়ে সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিরোধীরাও।