এবার ইডির হাতে গ্রেফতার অনুব্রত, সায়গল, সুকন্যার পর কি এবার দিল্লির পথে কেষ্ট?

| Nov 19 2022, 12:06 AM IST

Anubrata Mondal

সংক্ষিপ্ত

ইডি সূত্রে খবর গোরু পাচার মামলায় টাকা লেনদেনের বিষয় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল অনুব্রতকে। কিন্তু বিশেষ সদুত্তর না মেলায়ই গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

গোরুপাচার মামলায় এবার ইডির হাতে গ্রেফতার হলেন জেলবন্দি অনুব্রত। বৃহস্পতিবার অনুব্রত মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আসানসোলের জেলে পৌঁছন দিল্লির ইডি আধিকারিকরা। প্রায় পাঁচ ঘন্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদের পর বীরভূমের প্রতাপশালী তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। ইডি সূত্রে খবর গোরু পাচার মামলায় টাকা লেনদেনের বিষয় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল অনুব্রতকে। কিন্তু বিশেষ সদুত্তর না মেলায়ই গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। সূত্রের খবর 'সোন অ্যারেস্ট' করা হয়েছে অনুব্রতকে অর্থাৎ ২৪ ঘন্টার মধ্যেই আদালতে পেশ করতে হবে তাঁকে।

বৃহস্পতিবার চার পাতার প্রশ্নপত্র নিয়ে আসানসোল জেলে হাজির দিল্লির ইডি অফিসাররা। গতকাল রাতেই রাজধানী থেকে কলকাতায় পৌঁছেছিলেন তাঁরা। এবার গোরু পাচার মামলার তদন্তে অনুব্রতকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে সোজা আসানসোল জেলে হাজির তদন্তকারীরা। এই প্রথম অনুব্রতকে আসানসোল জেলে গিয়ে জেরা করলেন তাঁরা। ইডি সূত্রে খবর অনুব্রতকে জেরা করার জন্য তৈরি হইয়েছিল চার পাতার প্রশ্নপত্র। বিপুল টাকার লেনদেন, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে নগদ কোটি কোটি টাকা থেকে শুরু করে আয়ের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ সম্পত্তি-সহ একাধিক বিষয় প্রশ্ন করা হয়েছে কেষ্টকে। এর আগেই কেষ্ট-কন্যার বয়ানে শোনা গিয়েছে টাকা ও সম্পত্তির বিষয় যা কিছু সব 'বাবা' জানে। এবার সেই সংক্রান্ত তথ্য জানতে চেয়ে অনুব্রতকে জেরা ইডির। জানা যাচ্ছে, অনুব্রত অসহযোগিতা করলে আদালতের কাছে অনুব্রতকে দিল্লিতে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করার আবেদনও জানাবে তদন্তকারী সংস্থা।

Subscribe to get breaking news alerts

সূত্রের খবর অনুব্রত মণ্ডলের মেয়ে, বৌ, অনুব্রতর মেয়ের দুটি সংস্থা ও ওই সংস্থার অন্যতম ডিরেক্টর ও কেষ্ট-ঘনিষ্ঠ বিদ্যুৎবরণ গায়েন, এঁদের মোট ৮ টি অ্যাকাউন্টে চার বছরে জমা পড়া টাকার পরিমাণ নগদ ১৬ কোটি ৪৫ লক্ষ। এই বিপুল টাকার খোঁজ মেলার পরই টাকার উৎস জানতে শুরু হয় তদন্ত। কী কারণে এত নগদ টাকা নেওইয়া হয়েছিল? কারাই বা এই টাকা জমা দিয়েছিল? নগদ টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে যে নিয়ম রয়েছে তা মানা হয়েছিল কি না, ইত্যাদি নানা বিষয় খতিয়ে দেখছে তদন্তকারী সংস্থা।