পত্রলেখা বসু চন্দ্র, পূর্ব বর্ধমান: স্কুলে ছেলের পেন্সি বক্স হারিয়ে গিয়েছিল। তা ফিরে পেতে ছেলের সহপাঠীদের জোর করে চাল পোড়া খাইয়ে দিলেন এক মা। যার জেরে অসুস্থ হয়ে পড়ল প্রায় চল্লিশটি শিশু। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোট গোগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। অভিযুক্ত মহিলার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। 

জানা গিয়েছে, চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র জাকির খান শুক্রবার স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পরে তার পেন্সিল বক্সটি পাওয়া যায়নি। মায়ের সন্দেহ হয়, স্কুলেরই কোনও সহপাঠীর কাছে সেটি আছে।  শনিবার স্কুলে ছাত্রদের মধ্যে জুতো বিলির কাজে ব্যস্ত ছিলেন শিক্ষকরা। অভিযোগ, সেই সুযোগে স্কুলে আসে জাকির খানের মা মরিয়ম বিবি। তার পরেই ক্লাসে গিয়ে সে 'মন্ত্রপুত' পোড়া চাল পোড়া ছেলের সহপাঠীদের জোর করে খাইয়ে দেয়। তার ছেলের পেন্সিল বক্স কার কাছে নিয়েছে, তা খুঁজে বের করতেই তিনি এই কীর্তি করেন বলে অভিযোগ। 

ওই চাল পোড়া খাওয়ার কিছুক্ষণ পর থেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ে চতুর্থ শ্রেণির শিশুরা। অনেকেরই পেট ব্যথা, বমি ভাব দেখা দেয়। এই ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই গ্রামের অভিভাবকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। অসুস্থ হয়ে পড়া প্রায় চল্লিশটি শিশুকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে অবশ্য প্রত্যেকেই সুস্থ হয়ে যায়। এর মধ্যেই ছেলেকে নিয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত মরিয়ম বিবি। 

তবে স্কুলের মধ্যে এস অতজন শিশুকে জোর করে চাল পোড়া খাওয়ানো সত্ত্বেও কেন তা কারও নজরে এল না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক মনতোষ কেশের অবশ্য দাবি, সরকারি জুতো বিলি করার কাজে শিক্ষকরা ব্যস্ত থাকাতেই বিষয়টি সবার নজর এড়িয়ে গিয়েছে।