দেখেশুনে পাত্রকে পছন্দ করেছিলেন, কিন্ত গোল বাধল বিয়ের পর। বউভাতের আসর থেকে কনেকে তুলে নিয়ে চলে গেলেন তাঁর পরিবারের লোকেরাই! চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে হুগলির গোঘাটে।

মাস খানেক আগে বিয়ে ঠিক হয় গোঘাটের বর্মা গ্রামের বাসিন্দা এক যুবকের। কলকাতায় একটি বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থার চাকরি করেন তিনি। পাত্রীর বাড়ি বাঁকুড়ার কোতলপুরে। মঙ্গলবার নির্বিঘ্নেই মেটে বিয়ের অনুষ্ঠান। কিন্তু বৃহস্পতিবার যখন বউভাতের অনুষ্ঠানে যোগ গিয়ে আসেন পাত্রীর বাড়ির লোকেরা, তখনই ঘটে বিপত্তি। জানা গিয়েছে,পাত্রী নিজেই বাড়ির লোককে জানান, পাত্রের একটি হাত অকেজো। স্বামীর সঙ্গে থাকতে রাজি নন তিনি। এরপরই সদ্য বিবাহিতা ওই তরুণীকে তাঁর পরিবারের লোককে নিয়ে চলে যান বলে অভিযোগ। ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। পুলিশের খবর দেন পাত্রের বাড়ির লোকেরা। কিন্তু পুলিশের কাছে পাত্রীর বাড়ির লোকেরা কোনও অভিযোগ জানাতে রাজি হননি বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, পুলিশকে পাত্রীর বাড়ির লোকেরা জানান, পাত্র বা  তাঁর বাড়ির লোকেদের তাঁদের কোনও অভিযোগ নেই। স্রেফ মেয়েকে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চান। বিয়ে ভেঙে যায়। 

আরও পড়ুন: মহিলার রক্তাক্ত দেহ ঘিরে রহস্য়, ধর্ষণ করে খুন কিনা তদন্তে পুলিশ

এদিকে পাত্রের ডান হাতটি যে অকেজো, তা স্বীকার করে নিয়েছেন বাড়ির লোকেরাও। কিন্তু তারজন্য় যে এমন ঘটনা ঘটবে, তা ভাবতেই পারেননি তাঁরা।  উল্লেখ্য, পাত্র বা পাত্রী কোনও শারীরিক সমস্যা বা প্রতিবন্ধকতা থাকতেই পারে। কিন্তু সেই তথ্য লুকিয়ে যদি বিয়ের আয়োজন করা হয়, তাহলে আইনের চোখে তা প্রতারণা। কিন্তু এক্ষেত্রে পাত্রীর বাড়ির লোকেরাই কোনও অভিযোগ করেননি। তাই পুলিশের পক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব ছিল না।