প্রেমের সম্পর্কে ইতি টানতে চেয়েছিল নাবালিকা প্রেমিকা। সেই আক্রোশেই প্রেমিকার বাড়িতে ঢুকে গলার নলি কেটে তাকে খুন করে আত্মঘাতী হলো যুবক। নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুরের গণতন্ত্র কলোনি এলাকায়। মৃত যুবক মেদিনীপুরের বাসিন্দা।

জানা গিয়েছে, ফোনে পরিচয়ের সূত্রেই ওই মেদিনীপুরের বাসিন্দা অমর শিট(২৫) নামে ওই যুবকের সঙ্গে দশম শ্রেণির ছাত্রী ওই কিশোরীর পরিচয় হয়েছিল। তা থেকেই দু' জনের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা। ওই কিশোরীর বাড়ি দুর্গাপুর পুরসভার ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গণতন্ত্র কলোনিতে। দু' জনের সম্পর্ক বেশ পুরনো বলেই মৃতার বাবা-মাও স্বীকার করেছেন। কিন্তু সম্প্রতি সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চেয়েছিল ই কিশোরী। আর সেই আক্রোশেই মঙ্গলবার তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে অমর। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার দুপুরে বাড়িতে একাই ছিল ওই কিশোরী। সেই সুযোগেই বাড়িতে ঢুকে পড়ে অমর। ধারাল কাস্তে দিয়ে কিশোরীর গলার নলি কেটে দেয় সে। কিশোরীর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা বাড়ির বাইরে জড়ো হলেও সদর দরজা বন্ধ থাকায় ভিতরে ঢুকতে পারেননি তাঁরা। জানলা দিয়ে তাঁরা দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় ওই কিশোরী ঘরের মধ্যে পড়ে রয়েছে।

বাড়ির বাইরে এলাকাবাসীকে জড়ো হতে দেখে এই কাস্তে দিয়েই নিজের শরীরে কুপোতে শুরু করে অমর। স্থানীয় বাসিন্দাদের থেকে খবর পেয়ে নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশ এসে দরজা ভেঙে দু' জনকে উদ্ধার করে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসকরা কিশোরীকে সঙ্গে সঙ্গেই মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে হাসপাতালে মারা যান আহত প্রেমিকও। 

নিহত কিশোরীর বাবা- মা এই সম্পর্কের কথা জানতেন বলে স্বীকার করেছেন। তাঁদের দাবি, অমর কোনও কাজকর্ম না করায় এবং তার স্বভাব ভাল না হওয়ায় মেয়েকে সম্পর্ক না রাখার জন্য বলেছিলেন তাঁরা। বাবা- মায়ের কথা শুনেই ওই কিশোরী সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে আসতে চেয়েছিল। আর তা করতে গিয়েই প্রেমিকের আক্রোশের স্বীকার হতে হলো তাঁকে।