পরীক্ষার মরশুমে বিসর্জন শোভাযাত্রায় তারস্বরে বাজছে ডিজে। প্রতিবাদ নয়, বরং কার্তিক পুজোর উদ্যোক্তাদের কাছে করজোড়ে ডিজে বন্ধ করে অনুরোধ করেছিলেন এক যুবক। তাতেও রেহাই মিলল না। ওই যুবককে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। আক্রান্ত ভর্তি হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার শান্তিপুরে। থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্তের পরিবারের লোকেরা।

আক্রান্ত যুবকের নাম সঞ্জিত কাষ্ঠ। বাড়ি, শান্তিপুরের কাশ্যপ পাড়া এলাকায়। এলাকায় পরিবেশকর্মী হিসেবে পরিচিত সঞ্জিত। তাঁর দাবি, পাড়ারই একটি বাড়িতে কার্তিক পুজো হয়। সোমবার সন্ধ্যায়  প্রতিমা নিয়ে বিসর্জন শোভাযাত্রা বের করেছিলেন বাড়ির সদস্যরা। শোভাযাত্রায় তারস্বরে ডিজে বাজাচ্ছিলেন কয়েকজন যুবক। তাঁরা সকলেই মদ্যপ ছিলেন বলে অভিযোগ।  ডিজে-এর বিকট শব্দে কান ঝালাপাল হয়ে যাচ্ছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের। সামনেই আবার মাধ্যমিক পরীক্ষা। বাড়িতে বসে পড়াশোনাও করতে পারছিল না পড়ুয়ারা। পরিবেশকর্মী সঞ্জিত কাষ্ঠের বক্তব্য, শোভাযাত্রায় যাঁরা ডিজে বন্ধ বাজাচ্ছিলেন, তাঁদের কাছে গিয়ে করজোড়ে ডিজে বন্ধ রাখার অনুরোধ করেছিলেন। আর তাতেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের মদ্যপ যুবকরা সঞ্জিত রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করেন বলে অভিযোগ।  ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন পরিবেশকর্মী সঞ্জিত কাষ্ঠ। তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে শান্তিপুর মহকুমা হাসপাতালে। থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্তে পরিবারের লোকেরা।  তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

উল্লেখ্য, স্রেফ বিসর্জন শোভাযাত্রাই নয়, এ রাজ্যে যেকোনও অনুষ্ঠানেই ডিজেই বাজানো আইনত নিষিদ্ধ।  কিন্তু তা আর মানছে কে!  বরং কারণে অকারণে ডিজে-এর বিকট শব্দে নাজেহাল হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। কিছু বলতে গেলে কপালে জুটছে বেধড়ক মার।