মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া:  ফ্যানের হাওয়া খেতে গিয়ে কি ঘটল বিপত্তি? শ্বশুরবাড়িতে এসে বেঘোরে প্রাণ গেল যুবকের। এলাকায় শোকের ছায়া। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার নবদ্বীপে।

আরও পড়ুন: করোনা সংক্রমণের শিকার বিডিও ও জয়েন্ট বিডিও, আতঙ্কের পারদ চড়ছে নলহাটিতে

মৃতের নাম সঞ্জীব পাত্র। বাড়ি, নবদ্বীপ থানার মহেশগঞ্জ বাগানে পাড়া এলাকায়।  বাবা-মা, ভাই, স্ত্রী ও সাত মাসের সন্তানকে নিয়ে ভরা সংসার। স্থানীয় হাসপাতালে অস্থায়ী গাড়ির চালক  হিসেবে কাজ করতেন সঞ্জীব। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, দিন পনেরো আগে স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে যান তিনি। সোমবার সন্ধ্যায় যখন কাজ থেকে ফেরেন, তখনই ঘটে দুর্ঘটনা।

আরও পড়ুন: চল্লিশের ঘর থেকে একলাফে পঞ্চাশে, রাজ্য়ে একদিনে করোনা নিয়ে মৃত ৫৩

জানা গিয়েছে, স্নান সেরে ঘরে ঢোকার পর টেবিল ফ্যানটি চালাতে গিয়েছিলেন সঞ্জীব। তখনই বিদ্যুৎপৃষ্ট হন তিনি।  চিৎকার শুনে ছুটে আসেন শ্বশুরবাড়ি ও আশেপাশে লোকেরা। তড়িঘড়ি ওই যুবককে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় মহেশগঞ্জ হাসপাতালে। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। হাসপাতালে সঞ্জীব পাত্রকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোকের ছায়া নামে এলাকায়। পাড়া-প্রতিবেশীদের কাছে ভালো ছেলে হিসেবে পরিচিত ছিলেন তিনি। তাঁর এমন পরিণতি মেনে নিতে পারছিলেন কেউই।