জমি নিয়ে বিবাদ ছিল। রাতের অন্ধকারে বাড়ির সামনেই নিজের ভাইকে গুলি করে খুন করল এক যুবক!  ঘটনার পর আবার অভিযুক্ত নিজেই থানায় ফোন করে বলে জানা গিয়েছে। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই চম্পট দেয় সে। এমনই নাটকীয় ঘটনা ঘটল আলিপুরদুয়ারে। এখনও অভিযুক্তের নাগাল পায়নি পুলিশ। তার খোঁজে তল্লাশি চলছে।

নিহতের বাপি পণ্ডিতের বাড়ি আলিপুরদুয়ারের ভোলারডাবরি গ্রামে আর অভিযুক্ত বিপ্লব বসাক উত্তর অরবিন্দ নগরের বাসিন্দা। বাপি ও বিপ্লব সম্পর্কে দুই ভাই। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, জমিজমা নিয়ে দু'জনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই বিবাদ চলছিল। সেই বিবাদের জেরে ঘটে গেল মর্মান্তিক ঘটনা।  বৃহস্পতিবার রাতে যখন বাড়ি ফিরছিলেন বাপি, তখন নিজের বাড়ির সামনে নির্জন রাস্তায় তাঁকে লক্ষ্য করে বিপ্লব গুলি চালায় বলে অভিযোগ। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়েন আক্রান্ত যুবক। তাঁর চিৎকারে ঘটনাস্থলে জড়ো হন স্থানীয় বাসিন্দারা।  বাপিকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন: শিশুকে নিয়ে উদ্য়াম নাচ বৃহন্নলাদের, মৃত্যু সদ্য়োজাতের

এদিকে বাপিকে নিয়ে যখন ছোটাছুটি করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা, তখন আলিপুরদুয়ার থানায় একটি ফোন আসে। ফোনে জানানো হয়, উত্তর অরবিন্দ নগর এলাকায় বাপি পণ্ডিত নামে এক যুবক খুন হয়েছে। কিন্তু থানায় কে ফোন করল?  আলিপুরদুয়ারের পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, অভিযুক্ত বিপ্লব বসাকই থানায় ফোন করছিল। এমনকী, সে-ই যে খুন করেছে, সেকথাও পুলিশকে জানায় অভিযুক্ত।  খবর পাওয়ামাত্রই ঘটনাস্থলে পৌছঁয় বিশাল পুলিশবাহিনী।  মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে অভিযুক্ত বিপ্লব বসাকের আর নাগাল পায়নি পুলিশ।  কিন্তু স্রেফ জমি বিবাদের কারণেই খুন নাকি অন্য় কোনও কারণও আছে? খতিয়ে দেখছে পুলিশ।