পশ্চিমবঙ্গের তিন বিধানসভা উপনির্বাচনের পাশাপাশি ভোটগ্রহণ চলছে উত্তরাথণ্ডের পিথোরাগড় বিধানসভা কেন্দ্রেও। রাজ্যে ক্ষমতায় থাকা বিজেপি-র হাত থেকে এই কেন্দ্রটি এবার ছিনিয়ে নেওয়াই লক্ষ্য কংগ্রেসের। রাজ্যের মন্ত্রী এবং পিথোরাগড়ের বিধায়ক প্রকাশ পন্থের মৃত্যুতে এই বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হচ্ছে।

তবে কংগ্রেসের কাজটি যথেষ্টই কঠিন। পিথোরাগড় কেন্দ্র ধরে রাখতে প্রচারে গিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিংহ রাওয়াত। সমবেদনার ভোট পেতে প্রার্থী করা হয়েছে প্রয়াত বিধায়কের স্ত্রী চন্দ্রা পন্থকে। তাঁর লড়াই কংগ্রেসের অঞ্জু লুন্ঠির সঙ্গে। 

পিথোরাগড়ের উপনির্বাচনের প্রচারে বিজেপি-র দাবি ছিল, কংগ্রেসের মতো ফাঁকা প্রতিশ্রুতি না দিয়ে মানুষের তারা প্রকৃত সেবা করতে চায়। অন্য দিকে কংগ্রেস বেকারত্ব, মূল্যবৃদ্ধির মতো ইস্যুগুলিকে হাতিয়ার করেই পিথোরাগড় জয় করতে চাইছে। 

পিথোরাগড়ে শেষ লগ্নের প্রচারে গিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন, গত দু' বছরে ওই বিধানসভার উন্নয়নে প্রায় সাড়ে তিনশো কোটি টাকা খরচ করেছে তাঁর সরকার। তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, পিথোরাগড়ে যে প্রকল্পগুলির কাজ চলছে তা দ্রুত শেষ করা হবে। ওই বিধানসভা কেন্দ্রে আরও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত। 

প্রথমে অবশ্য প্রার্থী হতে চাননি প্রয়াত বিধায়কের স্ত্রী চন্দ্রা। শেষ পর্যন্ত দলের জোরাজুরিতেই স্কুল শিক্ষিকার চাকরি থেকে পদত্যাগ করে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন তিনি। প্রয়াত স্বামীর অসম্পন্ন কাজ শেষ করতেই প্রচারে ভোট ভিক্ষা করেছেন তিনি। 

কংগ্রেসও এই কেন্দ্রটি ফের দখলে আনতে মরিয়া। ২০১৭ সালের নির্বাচনে অল্প ব্যবধানে বিজেপি-র প্রকাশ পন্থের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন কংগ্রেসের ময়ুখ মহর। তিনি এবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করলেও দলীয় প্রার্থীর হয়ে জোর প্রচার চালিয়েছেন। ফলে পিথোরাগড়ের লড়াই এবার হাড্ডাহাড্ডি।