ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হল বাংলাদেশের বিপুল সংখ্যক মানুষ। মাত্র একদিনের মধ্যেই ঢাকার একাধিক সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে এখনও পর্যন্ত ভর্তি হয়েছেন ৫৬১ জন মানুষ। মাত্র একদিনের মধ্যেই রেকর্ড স খ্যক রোগী ভর্তির খবরে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। 

এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৪৫ জন,  মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৫৭ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১১ জন। পাশাপাশি আরও সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতল মিলিয়ে  অন্তত ৫৬১ জনের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। সূত্রের খবর, আক্রান্তদের মধ্যে ৫৫৯জনই রাজধানীর বাসিন্দা। বাকি দু'জনের মধ্যে একজন খুলনার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। 

এই বিপুল পরিমাণ মানুষের ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ায় জানা গিয়েছে, সাম্প্রতিক পরিস্থিতি বলছে, প্রতি তিন মিনিটে রাজধানীর কোনও না কোনও  সরকারি কিংবা বেসরকারি হাসপাতালে একজন করে ডেঙ্গু আক্রান্ত ব্যক্তি ভর্তি হচ্ছেন। সূত্রের খবর, পৌরসভার মশা তাড়ানোর ওষুধ কাজ করছে না, তাই পরিস্থিতি ক্রমশই জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক সূত্রে, ডেঙ্গুবাহী মসা প্রতিরোধের জন্য আরও কার্যকরী ভুমিকা পালন করার কথা বলা হয়েছে।

বলা হচ্ছে অন্যান্যবারের তুলনায় এবারে বাংলাদেশে ডেঙ্গুরল প্রকোপ অনেকটাই বেশি। কারণ মাত্র জুলাই মাসেই এখনও পর্যন্ত ৬৪২১ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে বেসরকারি সূত্র বলছে সংখ্যাটা আরও কয়েকগুণ বেশি। জানা গিয়েছে ঢাকার সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে রোগীদের জন্য কোনও বেডই খালি নেই। তাই বাধ্য হয়েই করিডরেই চিকিৎসা চলছে অসংখ্য মানুষের। তবে ডেঙ্গু রুখতে আগে থেকে কেন কোনও কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হল না সেই প্রশ্নই উঠছে বিভিন্ন মহলে।