বাঙালির পড়ুয়ারা হারাল উদয়ন পন্ডিতকে। রহস্যের গন্ধ খোঁজা বাঙআলি হারাল ফেলুদাকে। জীবনের লক্ষ্যে পৌঁছনোর অদম্য জেদ রাখা বাঙালি হারাল ক্ষিদদাকে। বাঙালি হারাল এক যুগকে। এই ক্ষতি শব্দে ব্যাখা করার নয়। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বাংলায়। এই বছর একাধিক তারকাদের হারিয়েছে বিনোদন জগৎ, তবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু যেন স্তব্ধ করে দিয়েছে বিশ্বজোড়া বাঙালিকে। গত দু'দিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক পোস্টে বিভিন্ন মানুষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন অভিনেতাকে। 

শোকপ্রকাশ করে পুরনো স্মৃতিও তুলে ধরেছিলেন মিমি চক্রবর্তী, শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়, দেব, ঋতাভরী চক্রবর্তী সকলেই একের পর এক পোস্টে শোকপ্রকাশ করেছেন তাঁরা। এবার শেষ শ্রদ্ধা জানাল আমূল। আমূলের তরফ থেকে একটি পোস্টের মাধ্যমে প্রয়াত অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। সাদা কালো ছবিতে সৌমিত্র এবং আমূলের কার্টুন মেয়েটির হাতে ধরা মোমবাতি। চোখে মুখে চাপা দুঃখ। 'বাংলা মিত্রহীন' লিখে শেয়ার করা হয়েছে সেই পোস্ট। 

আরও পড়ুনঃজৈন পরিবারের পুত্রবধূ হয়েও ষোলোয়ানা বাঙালি নুসরত, প্রকাশ পেল নায়িকার Bong Beauty

 

ক্যাপশনে লেখা, "বাংলা তার অন্যতম শ্রেষ্ঠ এক রত্নকে হারিয়ে শোকস্তব্ধ।" আমূলের এই পোস্টে দুঃখটা যেন আরও চাগার দিয়ে উঠল বাঙালির। টানা ৪০ দিনের জীবন-মৃত্যুর লড়াইয়ে হার মেনে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। আর সেই ভুবন ভোলানো হাসি দেখতে পাবে না কেউ। আর সেই অভিনয় নতুন কোনও ছবিতে দেখার সুযোগ হবে না বাঙালির। তবে তিনি থাকবেন। আমাদের মননে, আজীবন। কারণ উদয়ন পন্ডিতদের কোনও মৃত্যু হয় না।