জি বাংলা সারেগামাপা জীবন বদলে দিয়েছে গোবরডাঙার মেয়ে অঙ্কিতা ভট্টাচার্যের। সারেগামাপা প্রতিযোগিতায় জিতে এখন সে সেলিব্রিটি। রাস্তায় বেরোলেই  মানুষ চিনতে পারছে, ঘিরে ধরছে তাকে।

অঙ্কিতার শুরুটা নাচ দিয়ে হয়েছিল। কিন্তু ৪ বছর বয়সে গান শুনে মেয়েকে গান শেখানোরই দায়িত্ব নেন অঙ্কিতার বাবা। প্রথম তালিম মায়ের থেকেই নিতে থাকে। পরে রাধামাধব পাল ও রথীজিৎ ভট্টাচার্যের কাছে গান শেখে  অঙ্কিতা। কিন্তু এই হঠাৎ পাওয়া খ্যাতির পরেই মন্তব্যের জন্য এবার ফেসবুকে জোড় হাতে ক্ষমা চাইল অঙ্কিতা। 

 

 

অঙ্কিতা ভিডিও-টি তে জানান, আমার একটি মন্তব্য নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। সত্যি বলছি আমি এমনটা বলতে চাইনি। আমি বলেছি এক, কিন্তু হয়েছে আর এক। অনেক গুণী মানুষ আমায় বলেছেন বেশি স্টেজ শো করলে গলা নষ্ট হয়ে যায়। আমি বলতে চেয়েছি,, আমি বেশি স্টেজ শো করব না। স্টেজ আমার মন্দিরের মতো। আপনাদের কারোকে কোনওভাবে যদি কষ্ট বা দুঃখ দিয়ে থাকি, আমায় ক্ষমা করবেন। আমায় দয়া করে ভুল বুঝবেন না। আমায় আশীর্বাদ করবেন। 

প্রসঙ্গত, এবারের সারেগামাপা-য় বিজয়ী হয়েছেন অঙ্কিতা। অঙ্কিতা ইছাপুর হাই স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তাই গানের সঙ্গে পড়াশোনাও চালিয়ে নিয়ে যাবে অঙ্কিতা। কিন্তু সে পাখির চোখ করেছে ছবিতে প্লেব্যাক গাওয়াকেই।