দূর্গাপূজা শেষ। এবার চলছে বিজয়ার পর্ব। নিউনর্মালে সকলেই পুজোর আনন্দে মেতে উঠেছিলেন। যে যার নিজের মতোন করেই এই বছরের পুজোটা উদযাপন করেছেন।  করোনা আবহে পুজোর রং ফিকে হলেও সকলেই পুজোর আনন্দে মাতোয়ারা। পুজো ফ্যাশনে একের পর এক ছবি পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ার নজর কেড়েছেন বাঙালি অভিনেত্রী মধুরিতা সরকার। এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় বড়সড় বোমা ফাঁটালেন বং ডিভা মধুমিতা। 

আরও পড়ুন-দুটো কিডনিই বিকল,কাজ করছে না স্নায়ুও, গুরুতর সঙ্কটজনক সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়...

বরাবরই নিজের মতোন করে জীবনটা উপভোগ করতে ভালবাসেন মধুমিতা। ফেভারিটজমের জোয়ারে ভেসেই পুজোয় নতুন করে প্রেমে পড়লেন পাখি। কে সেই মহান ব্যক্তি, যাকে মন দিয়েছেন টলিউডের দেশি গার্ল। জানার জন্য মুখিয়ে রয়েছে ভক্তরা। তবে উত্তেজনা ধরে রেখে রহস্য জিইয়ে রেখেছেন মধুমিতা। পুজোর সকালেই কলকাতার পাঁচতারা হোটেলে ব্রেকফার্স্ট টেবিলে দেখা মিলেছে তার নতুন প্রেমিকের।, ডিমের পোচের সঙ্গে সেলফিতে ক্লিক। মুহূর্তে ভাইরাল হয়েছে ছবি।

 

What the new chapter 🤔☺️😉 #madhumitasarcar #madhumita_rrishii_fc #fanpage #Repost @sabeerwalia ... Her cuisine is...

Posted by Madhumita Sarcar - Rrishii FC on Wednesday, October 21, 2020

 

গুঞ্জন-গুজবে কান না দিলেও তিনি বেশ খোশমেজাজেই রয়েছেন। হবু প্রেমিকের কথা শুনেই অনেকেই অনেকের নাম মাথায় এনে ফেলেছেন। কখনও শোনা গিয়েছিল তিনি নাকি, প্রথম সারির প্রযোজনা সংস্থা হাফ মালিকের ঘনিষ্ঠ, আবার অভিনেতা অর্জুন চক্রবর্তীর সঙ্গে তার রিল লাইফের রোম্যান্টিক দৃশ্যের পর রিয়েল লাইফেও কানাঘুষো শোনা গিয়েছিল।  তবে এরা কেউই নন, সাবির ওয়ালিয়া হলেন মধুমিতার  প্রেমিক। নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে তিনি বাঙালি নন, আপাতত পুজোর প্রেম নিয়ে লাইমলাইটে রয়েছেন মধুমিতা সরকার।

 

 

কাজ করতে এসেই মন দেওয়া হয়েছিল মধুমিতা ও সৌরভের। তারপর চুটিয়ে প্রেম। রিল লাইফের সম্পর্ক রিয়েল লাইফে পরিণতি পায় বছর  ৪ আগে অর্থাৎ ২০১৫ সালে বিবাহ বন্ধনীতে আবদ্ধ হন মধুমিতা সরকার এবং সৌরভ চক্রবর্তী।গত বছরেই বিবাহিত জীবনে ইতি টেনেছেন বাংলা টেলিভিশন জগতের দুই তারকা। টলিপাড়ার অন্দরে কান পাতলেই মধুমিতার প্রেম নিয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।  যদিও এসব নিয়ে একটুও মাথাব্যথা নেই অভিনেত্রীর। আপাতত লাভলাইফ চুটিয়ে উপভোগ করছেন বাঙালি অভিনেত্রী।