কবীর সিং, প্রথম দিনেই নজর কাড়া বক্সঅফিস সাফল্য, তারপরই বদলে গেছিল চিত্র। শুরু হয়েছিল ছবির চিত্রনাট্যকে ঘিরে বিতর্ক। ডাক্তারদের ভাবমুর্তি নষ্ট হওয়ার  কারণে সবর হয়েছিলেন মহারাষ্ট্রের জুনিয়ার ডাক্তার মহল। কিন্তু সেসব প্রশ্নকে এক পর্কার তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েই রমরমিয়ে চলছে কবীর সিং। এক সপ্তাহ ঘুরতে না ঘুরতেই একশো কোটির ক্লাবে নাম লিখিয়েছিল এই ছবি। এবার দুশো কোটির ক্লাবে পৌঁচ্ছে গেল শাহিদ কাপুর ও কিয়ারা অভিনীত এই ছবি।

আবারও সপ্তাহের শেষ। বাড়বে বক্সঅফিসের আয়, তার ফলে এই ছবিকে ঘিরে আরও আশাবাদী হলেন শাহিদ কাপুর। বলিউডের চকলেট বয়ের ভিন্ন লুক। রুক্ষ্ম, হতাশ, বদমেজাজী, সব প্রকারের বিপরীত দিকই চরিত্রে ধরা পরেছিল কবীর সিং-এর। কিন্তু তাতে কী, ভক্তের চোখে তিনি এখনও সেরা। বেশ কিছুদিন ধরে বি টাউনে শাহিদের দর ক্রমেই নিম্নগামী হয়েছিল। তা বর্তমানে ইতিহাস। এখন বক্স অফিসে শাহিদ একাই দুশো। 

চলতি সপ্তাহের শুরুতেই আভাস মেলে কবীর সিং ২০০ কোটির ক্লাবে নাম লেখাতে চলেছে, এবার তা সত্যি হয়ে গেল। ছবির শ্যুটিং চলা কালিনই একাধিকবার এই ছবির খবর শিরোনামে উঠে আসে। শাহিদের অক্লান্ত পরিশ্রম, শরীর নিয়ে গবেষণা, আদবে সাফল্যের মুখ দেখল, ফলে এখন বেজায় খুশি শাহিদ কাপুর।