জনপ্রিয় টেলি ধারাবাহিক 'কৃষ্ণকলি'র শ্যামা ইতিমধ্যেই দর্শকমহলে জনপ্রিয়।  প্রতিদিন সন্ধ্যে হতে না হতেই  শ্যামাকে দেখার জন্য মুখিয়ে থাকে একদল দর্শক। কালো চেহারার মিষ্টি মেয়েটির মধ্যে রয়েছে অনেক গুণ। ঢেউখেলানো চুল, লাল লিপস্টিক, আটপৌরে শাড়ি, কীর্তন গান-এই সবই যেন শ্যামার সঙ্গে যোগ্য সঙ্গত।  তার আসল নাম তিয়াশা রায়। কিন্তু তিয়াশা নয়, বরং শ্যামা নামে তিনি সকলের কাছে পরিচিত। রিল লাইফের স্বামী নিখিল এবং শ্যামার কেমিস্ট্রি সকলের মন কেড়েছে ইতিমধ্যেই।

আরও পড়ুন-বিয়ে করতে হলে মানতে হবে এই বিশেষ শর্ত, মনসুরের কাছে কী দাবি করেছিলেন শর্মিলা ঠাকুর...

দেখতে দেখতে রিয়েল লাইফেও তিনটি বছর কাটিয়ে দিলেন টলিপাড়ার লাভবার্ডস তিয়াশা রায় ও সুবান রায়। রিল লাইফের নিখিলের স্ত্রী শ্যামার রিয়েল লাইফের হিরো হলেন টেলি অভিনেতা সুবান রায়। ৩ বছর আগে পথচলা শুরু হয়েছিল সুবান ও তিয়াশার। কয়েকদিন আগেই তৃতীয় বিবাহবার্ষিকীর জমকালো উদযাপনের ছবি সকলের সঙ্গে শেয়ার করেছেন 'কৃষ্ণকলি'র শ্যামা। তৃতীয় বিবাহবার্ষিকীর থিম ছিল নীল। একে অপরের সঙ্গে রং মিলিয়ে নীল রঙে ডুব দিয়েছিলেন তিয়াশা ও সুবান। পরণে গাঢ় নীল রঙের শাড়ি, মাথায় অর্কিড, খোলা পিঠের স্লিভলেস ব্লাউজে যেন মোহময়ী অবতারে ধরা দিয়েছিলেন শ্যামা। সুবান কম কীসে, সেক্সি বউয়ের পাশে পাল্লা দিয়ে নীল পাঞ্জাবিতে নজর কেড়েছেন সুবান। বিবাহবার্ষিকী সেলিব্রেশনে খলনায়কের সঙ্গে রীতিমতো মালাবদল সেরে একে অপরের সঙ্গে সারাজীবনের সঙ্গী হওয়ারও শপথ নিয়েছেন এই জুটি। এরই মধ্যে কী হল এই জুটির।

বিবাহবার্ষিকীর রেশ কাটতে কাটতেই আফসোসের সুর ফুটে উঠেছে তিয়াশার গলায়। তার স্বামীটা নাকি দেখতে বর বর হলে আসলে সে একটা বর্বর, বিয়ে করে তিনি নাকি অকালে ফেঁসে গেছেন, এসব কী বলছেন তিয়াশা। বিষয়টি একটু খোলসা করে বলা যাক, স্বামী সুবানের সঙ্গে একটি ভিডিও পোস্ট করেই তিনি কথা গুলি বলেছেন। এবং এখানেই শেষ নয়, গানের সুরে সুরও মিলিয়েছেন। দেখে নিন ভিডিওটি,

 


 'শুধু তোমারই জন্য' জনপ্রিয় গানের সঙ্গেই লিপ মিলিয়েছেন তিয়াশা। যা মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যেও তাদের সম্পর্ক নিয়ে নানা গুজব রটেছিল। এমনকী বিবাহবিচ্ছেদ নিয়েও উত্তাল হয়েছিল। তবে সমস্ত গুঞ্জনকে তুড়ি মেড়ে উড়িয়ে দিয়েছেন তিয়াশা। ২০১৭ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন তিয়াশা রায়। ২০১৭ সালে নাটকের ওয়ার্কশপে প্রথম আলাপ যুবান ও তিয়াশার। দুজনের বয়সের ফারাকও ১০ বছর। তবে বয়স যে নিছকই সংখ্যামাত্র তা তারা বারেবারে বুঝিয়ে দিচ্ছেন। কাজের হাজারো ব্যস্ততার মাঝেও বিশেষ দিনে প্রিয় মানুষের সঙ্গে সময় কাটাতে ভোলেন না এই লাভবার্ডস।