'রোজ কষ্টে থাকলেও, ওরা ঠিক আবার সামলে ওঠে, ওদের জন্যই গাছে বোধহয়, দু একটা সূর্যমুখী বেশি ফোটে।' শেষে একটি হ্যাশট্যাগে লেখা তনয়া। এই ছিল ক্যাপশন তার সঙ্গে একটি সেমি ক্যানডিড মনামীর ছবি। অভিনেত্রী বাড়ির বাগানের সূর্যমুখী তুলে কানের গুঁজে নিয়েছেন। ক্যাপষনে বার্তাটি খুব সম্ভবত মহিলাদের উদ্দেশ্য করে। মেয়েরা নিত্যদিন নানা কষ্ট সামলে ফের নিজের পায়ে দাঁড়ায়। পরের দিনের লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত হয়। তবুও বাইরে থেকে তারা মনামীর এই ছবির মতই শান্ত, শীতল, স্বচ্ছ। মনামীর ইনস্টাগ্রাম লকডাউনে যেন টোটাল বিনোদনের প্যাকেজ।

আরও পড়ুনঃএকমাত্র মুম্বই সাইক্লোন-করোনা দাপট একসঙ্গে সহ্য করছে, বলিউড প্রযোজকের জ্ঞানহীনতায় সৃজিতের জবাব

কী না নেই নাচ, গান, কবিতা আবৃত্তি, শর্ট ফিল্ম। দিন কতক আগে মায়ের সঙ্গে গান গেয়েও ভিডিও আপলোড করেন অভিনেত্রী। মা ও মেয়ের সুরের প্রতিভায় হতবাক হয়েছিল নেটবাসী। অভিনেত্রী মনামী ঘোষ যে নিজের গানের প্রতিভা মায়ের থেকে পেয়েছে তা প্রকাশ পেল অভিনেত্রীর পোস্ট করা ভিডিওতে। মনামী এবং তাঁর মা সুর ধরেছেন লকডাউনে। 'এক বৈশাখে দেখা হয়েছিল দুজনার' গানটি গেয়েছেন দুজনে। মনামী মাঝে মধ্যেই নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় গানের ভিডিও পোস্ট করেন। এই প্রতিভা যে নিজের মায়ের থেকে পেয়েছেন তা বুঝতে আর অসুবিধা হয়নি নেটবাসীর। ভিডিওটি এখন রীতিমত ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আরও পড়ুনঃ'পদ্মাবত'-এ শাহিদের চরিত্রে থাকার কথা ভিকির, জনপ্রিয়তার অভাবে তাঁকে ছবি থেকে সরিয়ে দেন দীপিকা


প্রসঙ্গত লকডাউনে মনামীর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল বিনোদের চেয়ে কম কিছু নয়। কখনও স্যুইমিং পুলের ধারে ব্যাকলেস স্যুইমসুটে তো কখনও রাস্তার মাঝে মন ভাল করা ক্যানডিড। মনামী ঘোষের ইনস্টাগ্রাম যেন ক্যানভাসের মত। রঙ-বরঙের ছবিতে লকডাউনে সকলের মন ভরিয়ে দিচ্ছেন অভিনেত্রী। থ্রোব্যাক ট্রেন্ডে গা ভাসিয়ে দিন কতক আঘে পুরনো ছবি পোস্ট করেছিলেন অভিনেত্রী। কালো রঙের পোলকা ডটসের স্যুইমসুট, সঙ্গে বেগুলি রঙের স্কার্ট। ফাইভ স্টার হোটেলের পুলসাইডে ছবিটি তুলেছেন মনামী। এখন লকডাউনে পারদ চাড়লেন অভিনেত্রী। মনামী দর্শকদের বিনোদনের জন্য বেছে নিয়েছেন নাচ, গান, টিকটক ভিডিও পোস্ট ছাড়াও শর্ট ফিল্ম তৈরি করা।