লকডাউনের মাঝেই আরও এক মৃত্যু সংবাদ। তারকা পতন এবার বাংলাদেশে। চলে গেলেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত সুরকার, পরিচালক আজাদ রহমান। বাংলাদেশের এক সংবাদ মাধ্যমকে প্রথম জানায় তাঁর বোন মাসুমা মান্নান লীনা। বার্ধক্য জণিত কারণে বেশ কয়েকদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন আজাদ রহমান। শুত্রবার তাঁর স্বাস্থ্যের অবনতী ঘটায় এক স্থানীয় বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল আজাদ রহমানকে। 

আরও পড়ুনঃ লকডাউনেই মোনালিসার দুবাই ভ্রমণ, বিক্রান্তের সঙঅগে ছবি শেয়ার করে তাপমাত্রা চড়ালেন 'ঝুমা বউদি'

পরিবার সূত্রে খবর, সুরকার শনিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মুহুর্তে শোকের ছায়া নেমে আসে সাংস্কৃতিক ও বিনোদন জগতে। পরিবারে রয়েছে তাঁর স্ত্রী ও তিন মেয়ে। বাংলাদেশে তিনি প্রথম সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন বাবুল চৌধুরী পরিচালিত ‘আগন্তুক’ ছবিতে। এরপর ‘বাদী থেকে বেগম’, ‘এপার ওপার’, ‘পাগলা রাজা’, ‘অনন্ত প্রেম’, ‘আমার সংসার’, ‘মায়ার সংসার’, ‘দস্যুবনহুর’, ‘ডুমুরের ফুল’, ‘মাসুদ রানা’ সহ বহু জনপ্রিয় ছবির সঙ্গীত তৈরি হয়েছে তাঁক হাতেই। 

আরও পড়ুনঃ লকডাউনেও নেটদুনিয়ায় আগুন ধরালেন কৌশানি, বোল্ড ছবি শেয়ার করে হটকেক অভিনেত্রী

সঙ্গীত পরিচালক আজাদ রহমানের জন্ম ১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি। তিনি পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। রহমানের সঙ্গীতের হাতেখড়িও এখানেই, রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে খেয়ালে স্নাতক সম্পন্ন করেছিলেন। কলকাতার জনপ্রিয় বাংলা ছবি ‘মিস প্রিয়ংবদা’-তে প্রথম সঙ্গীত পরিচালনা করেন তিনি। তাই তাঁর সঙ্গীত জগতের যাত্রা শুরু হয় কলকাতার বুকেই। পরবর্তীতে তিনি প্রতিষ্ঠিত হন বাংলা দেশে। এক বাংলায় নারীর টান, শৈশবের টান, অন্য বাংলায় স্বপ্নপূরণ, তাই সুরকারের প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমে আসে দুই বাংলায়।