কালজয়ী উপন্যাসগুলির মধ্যে একটি হল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের 'শেষের কবিতা'। 'শেষের কবিতা'-র অমিত ও লাবণ্যের প্রেম, শোভনলাল, কেতকী এই চরিত্রগুলি আজকের প্রজন্মকেও অনুপ্রাণিত করে। উপন্যাস শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চরিত্রগুলি তখন পাঠকের কল্পনার জগতেই বিচরণ করতে থাকে। পরিচালক অনঞ্জন মজুমদারও ভেবে ফেললেন উপন্যাসটি যেখানে শেষ হয়েছিল, তার ২৫ বছর পরের চিত্রটা ঠিক কেমন। আর সেই কল্পনা থেকেই তৈরি তাঁর শর্ট ফিল্ম 'অবশেষের গল্প'। 

অনঞ্জনের 'অবশেষের গল্প'-এ লাবণ্য় অমিতের বিচ্ছেদের পরে কেটে গিয়েছে ২৫ বছর। অমিতের মৃত্যু হয়েছে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে। এখন কেতকী তাঁদের একমাত্র ছেলে স্পর্শকে নিয়ে থাকেন। অন্যদিকে লাবণ্য আর শোভনলালের গোছানো সংসার। লাবণ্য ও শোভনলালের একমাত্র মেয়ে পালকের সঙ্গে দেখা স্পন্দনের। তার পরে আলাপ ও প্রেম। 

এভাবেই একদিন পালকের বাবা-মা অর্থাৎ শোভনলাল ও লাবণ্যের সঙ্গে দেখা করতে আসে স্পর্শ ও তার মা কেতকী। লাবণ্যকে দেখেই চিনতে পেরে যায় কেতকী। উঠে আসে অতীতের কথা। স্বল্প দৈর্ঘ্যের এই ছবিতে চরিত্রগুলিকে নিয়ে কল্পনার জাল বুনেছেন অনঞ্জন। 

লাবণ্যের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অঞ্জনা বসু, শোভনলাল বাদশা মৈত্র আর কেতকী বিদীপ্তা চক্রবর্তী। স্বল্প দৈর্ঘ্যের এই ছবিটি মুক্তি পেয়েছে আমারা মিউজিক-এর চ্যানেল থেকে। 

শেষের কবিতা নিয়ে আরও একটি ছবি খুব শীঘ্রই মুক্তি পাচ্ছে। জিৎ চক্রবর্তীর  পরিচালনায় এই ফিচার ফিল্মটির নাম 'শেষের গল্প'। অমিতের চরিত্রে দেখা যাবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে, লাবণ্য় মমতা শঙ্কর।