৪০ বছর আগে বড় অসময়ে ইহলোক ত্যাগ করেছিলেন একজন। আরেকজন অমৃতলোকের বাসিন্দা হয়েছেন রবিবার (১৫ নভেম্বর) সকালেই। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং উত্তম কুমার - একটা সময় ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান'এর মতোই ছিল বাঙালি দ্বিধাবিভক্ত ছিল বাংলা সিনেমার এই দুই আইকনকে নিয়ে। তর্কের পর তর্ক চলত চা টেবিলে। তবে দুই প্রবাদপ্রতীম অভিনেতা নিজেরা কিন্তু দারুণ ভাল বন্ধু ছিলেন। কিন্তু, কবে থেকে শুরু হয়েছিল তাঁদের সেই বন্ধুত্ব? কবে কোথায় প্রথম দেখা হয়েছিল এই দুই অভিনেতার?

সৌমিত্র-উত্তমের একসঙ্গে অভিনিত প্রথম ছবি তপন সিনহার পরিচালিত 'ঝিন্দের বন্দি'। ১৯৬১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সেই ফিল্মের আউটডোরেই দুই অভিনেতার বন্ধুত্ব গাঢ় হয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু, তারও অনেক আগে থেকেই পরিচয় হয়েছিল দুজনের। বস্তুত, প্রথম মুখোমুখি সাক্ষাতটা কিন্তু হয়েছিল, সৌমিত্র সিনেমা জগতে পা রাখার আগে থেকেই।

এক সাক্ষাতকারে সৌমিত্র জানিয়েছিলেন তাঁর শ্যালকের খুব কাছের বন্ধু ছিলেন উত্তমকুমার। সেইসূত্রে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বোনের বিয়েতে নিমন্ত্রিত হিসাবে সৌমিত্রদের বাড়িতে এসেছিলেন উত্তম। সেই প্রথম দেখা হয়েছিল দুই প্রবাদপ্রতীম অভিনেতার। যা, সৌমিত্রর কথায় ঝিন্দের বন্দির আউটডোরে প্রায় প্রেমে পরিণত হয়েছিল। তারপর থেকে হৈ চৈ, ঝগরা, আনন্দের মধ্য দিয়ে তাঁদের বন্ধুত্ব এগিয়েছিল।

সৌমিত্র-উত্তম-এ দ্বিধাবিভক্ত বাঙালি সমাজে চালু ছিল সৌমিত্র হলেন 'সেরিব্রাল অভিনেতা' অর্থাৎ মস্তিষ্ক দিয়ে অভিনয় করেন। আর উত্তমকুমার হলেন 'পপ আইকন' অর্থাৎ জনপ্রিয়তাই তাঁর সব। তবে সৌমিত্র নিজে তা একেবারেই মানতেন না। এইসব লেবেল মেরে দেওয়া তাঁর একেবারেই পছন্দ ছিল না। বলেছিলেন, 'একজন ভাল অভিনেতাকে সেরিব্রাল হওয়ার পাশাপাশি ডাউন-টু-আর্থ'ও হতে হয়। তথাকথিত সেরিব্রাল অভিনেতাকেও মাটিতে পা দিয়ে চলতে হয়। অন্যথায়, আপনি কখনই একজন ভাল অভিনেতা হতে পারবেন না।'