দীর্ঘ এক সপ্তাহ ধরে লড়াই চলছে করোনার সঙ্গে। তবে বর্তমানে খানিক বিপদ মুক্ত তিনি। এমনটা খবর সামনে এসেছিল রবিবার। কিন্তু সোমবার সকালেই আবারও ঘটল ছন্দপতন। এবার সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় গেলে প্লাজমা থেরাপিতে। সংক্রমণ ছড়িয়েছে মূত্রনালিতেও। অথচ রবিবারই সামনে আসা খবর অনুযায়ী, এখন আর লাগছে না অক্সিজেন। শ্বাসকষ্টের সমস্যা আর নেই। যার ফলে এখন অনেকটাই ভালো আছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়। গত কয়েকদিনে ধরেই উদ্বেগ বাড়িয়েছিলেন তিনি। শরীরের অবস্থার অবনতী ঘটাতে ছড়িয়ে ছিল আতঙ্ক। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড হয়েছিল ফাইট ফেলুদা ফাইট। 

শুক্রবারই খবর সামনে আছে, শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে বাংলা কিংবদন্তী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। শুক্রবার সাতেই হাসপাতা সূত্রে খবর দিয়ে জানানো হল ভালো নেই অভিনেতার শারীরিক অবস্থা। শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা বাড়ায় চলছে অক্সিজেন। বর্তমানে আইটিইউ-তে রাখা হয়েছে তাঁকে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের রক্তের চাপও নেই নিয়ন্ত্রণে। ফলে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে ডাক্তারদের। রাখা হয়েছে কড়া নজরদারিতে। 

শরীরে করোনা সংক্রমণ নিয়ে মঙ্গলবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। কলকাতার এক বেসকারি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। যদিও সেই সময় শরীরে ছিল না তেমন কোনও সমস্যা। জানানো হয়েছথিল, তাঁর শারীরিক তেমন কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু অভিনেতার শ্বাসকষ্ট থাকার ফলে তাঁকে পর্যবেক্ষমে রাখা প্রয়োজন ছিল। আর সেই জন্যই হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল পরিবারের পক্ষ থেকে।