এখনও পুরোপুরি সঙ্কটমুক্ত নন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। তবে গতকালের তুলনায় শারীরিক পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে। আজ ফের করোনা পরীক্ষা করা হবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। গতকাল খুলে নেওয়া হয়েছে বাইপ্যাপ সাপোর্ট। বাইপ্যাপ সাপোর্টও আপাতত লাগছে না অভিনেতার। তবে এখনই পুরোপুরি সুস্থ নন বাঙালির ফেলুদা।  গতকাল সন্ধ্যাবেলাতেই  মেডিক্যাল বুলেটিনে একথা জানিয়েছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কাল রাতে ঘুম ভাল হয়েছে অভিনেতার। শরীরে সোডিয়ামের পরিমাণ এখনও একটু বেশি রয়েছে। তবে তাছাড়া অন্যান্য প্যারামিটার স্বাভাবিক রয়েছে।

আজ আরও একবার করোনা পরীক্ষা করা হবে অভিনেতার। করোনা কাবু করেছে বর্ষীয়ান অভিনেতাকে। দীর্ঘ কয়েকদিন ধরেই করোনার সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। গত সোমবারই অভিনেতার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।পরের দিন সকালেই বেলেভিউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অভিনেতাকে। টানা আটদিন ধরে চলছে জীবন-মৃত্যুর লড়াই। অদম্য ফাইটিং স্পিরিট নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন বাঙালির ফেলুদা। ফের সোমবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছিল সৌমিত্রর। শ্বাসের সমস্যার কারণেই বাইপ্যাপ সাপোর্টও দেওয়া হয়েছিল সৌমিত্রকে।

বর্তমানে কোভিড এনসেফেলোপ্যাথিতে ভুগছেন ৮৫ বছর বয়সী অভিনেতা। ইতিমধ্যেই দ্বিতীয়বার ফের প্লাজমা থেরাপি দিতে হয়েছে সৌমিত্রকে।  এর আগেও একবার প্লাজমা থেরাপি করা হয়েছিল অভিনেতাকে। শনিবার প্রথম দফায় প্লাজমা থেরাপি দেওয়া হয় অভিনেতাকে, তারপরও রবিবার পরিস্থিতির আবারও অবনতি হয়। এবং রবিবারও দ্বিতীয় দফায় তাঁর প্লাজমা থেরাপি চলে। সৌমিত্রর চিকিৎসায় ১৬ সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে, যেখানে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে রয়েছেন দুইজন সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকও। প্রতি মুহূর্তেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক পরিস্থিতি মনিটার করছেন চিকিৎসকেরা। সৌমিত্রর প্রস্রাবেও ই-কোলাই পাওয়া গিয়েছে। দেহে সোডিয়ামের মাত্রাও বেড়েছে। তার সুস্থ হওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে সেই কো-মর্বিডিটি এবং বয়স।