রাতে ভাল ঘুম হয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। তবে স্থিতিশীল হলেও আচ্ছন্নভাব রয়েছে 'ফেলুদা'-র। এনসেফ্যালোপ্যাথির প্রভাব কাটলেই ছেড়ে দেওয়া হতে পারে অভিনেতাকে। এমনটাই জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

 

 

আরও পড়ুন, সিটি স্ক্য়ান করা হল দিলীপ ঘোষের, ফুসফুসের অবস্থা নিয়ে কী বলছেন চিকিৎসকেরা

 বৃহস্পতিবারের পর থেকে ধীরে ধীরে সুস্থের পথে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। আগের থেকে বেড়েছে ফুসফুসের সংক্রয়িতা। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নাকের মধ্য দিয়ে নল দিয়ে খাবার দেওয়া হচ্ছে তাঁকে। তবে এখনও আচ্ছন্ন ভাব কাটেনি। অক্সিজেন সাপোর্ট ছাড়াই রাতে ভাল ঘুম হয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কথা বলার চেষ্টাও করছেন তিনি। ফলে ধীরে ধীরে যে তিনি সুস্থ হচ্ছেন তার ইঙ্গিত স্পষ্ট। তবে যে ভয়াবহ পরিস্থিতি হয়েছিল গত রবিবার, সেই বিপদ কাটিয়ে এখন এক সপ্তাহ পর আশার আলো দেখাচ্ছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের একাধিক রিপোর্ট। উল্লেখ্য, শনিবার সকালের বুলেটিনে সামনে এসেছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের রিপোর্ট। তাই স্বস্তিতে সবাই। 

 

আরও পড়ুন, সকালেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সতর্কতা দক্ষিণ ২৪ পরগণায়, ভিজবে কলকাতাও

করোনার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর চলতি মাসেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। প্রথমে অবস্থা স্থিতিশীল থাকলেও পরবর্তীতে তা জটিল হয়ে ওঠে। এই মুহূর্তে তিনি সুস্থই রয়েছেন। আর জ্বর আসেনি। যদিও তাঁকে কড়া নজরদারিতেই রাখা হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। অপরদিকে তাঁর আরোগ্য কামনাতে সমবেত পুরো কলকাতা।