দীর্ঘদিনের স্বপ্ন এবার বাস্তবায়িত হতে চলেছে। সদ্যই শেষ হয়েছে 'ফেলুদা ফেরত'  ছবির শুটিং। আর শুটিংয়ের শেষ দিনেই পরিচালক ফিরে গেলেন শৈশবে।  আর শৈশবে ফিরে গিয়ে নস্ট্যালজিয়াকে উস্কে দিয়ে একটি আবেগপ্রবণ পোস্ট করলেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। ফেলুদাময় শৈশব জড়িয়ে রয়েছে তার শৈশবের স্মৃতিতে। 

আরও পড়ুন-সারা নয়, এবার প্রাক্তন প্রেমিকার মা-তেই মজলেন কার্তিক...


দীর্ঘদিন ধরে ফেলুদা নিয়ে  ফেলুদা নিয়ে কাজ করার ইচ্ছে ছিল পরিচালকের। সেই ফেলুদাকেই এবার শাণ দিয়েছেন  তিনি। তবে সিনেমায় নয়, ফেলু মিত্তিরের আত্মপ্রকাশ ঘটতে চলেছে ওয়েব ফরম্যাটে। অনেকদিন ধরেই এ নিয়ে জল্পনা চলছিল। টলি ইন্ডাস্ট্রিতে এবার ১০  বছর পূর্ণ হল সৃজিতের। অনেকদিন ধরেই পরিচালক সৃজিত একের পর এক নয়া চমক দিয়েছেন। আর এবার শেষবেলায় এসে  নিজেকে আর ধরে রাখতে না পেরে আবেগঘন বার্তা দিলেন সৃজিত। 


এতদিন ধরে ফেলুদা নিয়ে যা দ্বন্ধ ছিল তার তো অবসান হয়েছে। ফেলুদা তো প্রকাশ্যে এল।  ফেলুদা নিয়ে এতটাই  উচ্ছ্বসিত পরিচালক  একের পর এক ছবি, রেখাচিত্র, অন্দরমহলের চিত্র সবই একে একে শেয়ার করেছেন দর্শকদের সঙ্গে।সৃজিত পোস্টটিতে লিখেছেন, এখনও পর্যন্ত ১৭ টি ছবি বানিয়েছি। আরও কয়েকটা বানাব। তবে এই ছবির দিনে শেষে এসে যেটা বুঝলাম আজ আবধি যত ছবি করেছি সবথেকে বেশি এই শুটিং উপভোগ করেছি। এ ইচ্ছেপূরণের জন্য নয়, এ হল এক অন্য কাহিনী। প্রতিদিন শ্যুটিং -এর সময়  একটা রোগা, সরল মনের ছেলে আমার পাশে বসে মনিটারের দিকে তাকিয়ে থাকত। বয়স মাত্র ১৫। কিছপ ভুল হলে ভ্রু বাঁকাত, আবার শট ঠিক হলে পিঠ চাপড়ে দিত। গল্পের বইয়ের প্রতিটা পাতা যেন জীবন্ত হয়ে উঠত।  পুরোনো দিনের প্রতিটা কথা যেন ও আমায় মনে করিয়ে দিত। কিন্তু সব যখন শেষ হল  ছেলেটি কোথায় যেন উধাও হয়ে গেল। 'ছিন্নমস্তার অভিশাপ'এবং 'যতকান্ড  কাঠমান্ডুতে' এই দুটি ছবির গল্পই বেছে নিয়েছেন পরিচালক তার ফেলুদা ফেরত 'ওয়েব সিরিজ'এর জন্য।