আতঙ্কের আর এক নাম করোনা। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই করোনা আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। । ইতিমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাকে মহামারি বলে চিহ্নিত করেছে।  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে সকলেই মরিয়া হয়ে উঠেছেন। সারা বিশ্বে যেমন গ্রাস করেছে করোনা তেমনি বাংলাতে এই করোনা আতঙ্কে জেরবার মানুষ।  এবার করোনা নিয়ে সচেতন করতে বিশেষ উদ্যোগ নিলেন তৃণমূল সাংসদ তথা টলি অভিনেতা দেব। আসন্ন ছবি 'হবুচন্দ্র রাজা গবুচন্দ্র মন্ত্রী'র  রাজা হবুচন্দ্র এবং মন্ত্রী গবুচন্দ্র এসেছেন স্বয়ং বার্তা দিতে।

আরও পড়ুন-'জনতা কার্ফু সফল করুন', সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদীর ভাষণ তুলে বার্তা শাহরুখের...

 

 

করোনার থাবা পড়েছে এবার রাজা হবুচন্দ্রর জীবনে। ছবির প্রযোজক দেব, তখন ছবিতে চমক তো থাকবেই। একদিকে ছবির চমক, অন্যদিকে করোনা ভাইরাসের সচেতনতার বার্তা দিতেই এই অভিনব উদ্যোগ নিলেন  দেব। পুরো অ্যানিমেশনের মাধ্যমে গোটা ভিডিওটি বানানো হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা গেছে,  রাজার হাতে 'বোম্বাগড় দৈনিক পত্রিকা'। রাজার পাশে বসেই মন্ত্রী মশাই মুখে মাস্ক লাগিয়ে নাক ডেকে ঘুমোচ্ছেন। রাজা ডেকে তোলেন মন্ত্রীকে। তারপর করোনা নিয়ে নানা তথ্য উঠে আসে তাদের কথোপকথনে। চিন্তার ভাঁজ পড়েছে রাজার কপালে। মজার ছলে তাল মিলিয়ে খুব সুন্দর তথ্য দিয়েছেন রাজা-মন্ত্রী।

 

 

করোনা ভাইরাস কীভাবে প্রতিরোধ করা যায় এবং কেন্দ্র ও রাজ্য উদ্যোগ নিচ্ছে এই ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে তার সবই ফুটে উঠেছে এই ভিডিওতে। সিনেমার প্রচার হোক বা গুরুত্বপূর্ণ সচেতনতার বার্তা সবেতেই সকলের থেকে হটকে দেব। আর এবারও তার অন্যথা হল না। সিনেমার স্টাইলেই এই করোনা বার্তা নজর কেড়েছে সকলের। তবে সচেতনতা প্রচারের জন্য ভিডিওটি বানানো হয়েছে। দক্ষিণারঞ্জন মিত্র মজুমদারের গল্প 'হবুচন্দ্র রাজা গবুচন্দ্র মন্ত্রী'এবং 'সরকার মশাইয়ের থলে' অবলম্বনে এই সিনেমা তৈরি করা হয়েছে।রূপকথার দেশের গল্প নিয়ে আসছে এই ছবি। রাজ্যের নাম বোম্বাগড়। আর সেই রাজ্যের রাজা হলেন হবুচন্দ্র। সে যেন এক ভারী মজার দেশ। রাজা হবুচন্দ্র আর তার মন্ত্রী গবুচন্দ্র মিলেই রাজ্যপাট সামলাচ্ছেন। আর সেখানে আছেন এক রাণী কুসুমকুমারী। গ্রীষ্মের ছুটিতেই আসতে চলেছে এই ছবি।

আরও পড়ুন-বলিউডে প্রথম করোনা, আক্রান্ত 'বেবি ডল' গায়িকা, বিদেশ সফর গোপন করায় বিপত্তি...

মানুষের সংস্পর্শেই সংক্রমিত হচ্ছে এই করোনা ভাইরাস । মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু।  যত দিন যাচ্ছে ততই যেন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। সারা দেশে  মহামারির আকার ধারণ করেছে এই করোনা ভাইরাস।  ইতিমধ্যে মুম্বইতে জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। করোনা আক্রান্তের মধ্যেই ইতিমধ্যেই মুক্তি পিছিয়েছে 'সূর্যবংশী', 'জার্সি', 'ব্রহ্মাস্ত্র'-এর মতো একাধিক ছবি।  এমনকী বক্স অফিসের লোকসানের মুখে রয়েছে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি 'আংরেজি মিডিয়াম'। তবে এই সিনেমার ক্ষেত্রে তেমনটা হবে কিনা  তা এখনও বোঝা যাচ্ছে না। এই মুহূর্তে করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে ভারত। আগামী দুসপ্তাহ সারা দেশের কাছে খুবই গুরত্বপূর্ণ। ৩১ মার্চ পর্যন্ত উড়বে না আর্ন্তজাতিক উড়ান। বাতিল করা হয়েছে ১৫৫ জোড়া ট্রেন। বন্ধ হয়েছে একাধিক সিনেমা হল, শপিং মল। রাজ্যে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ স্কুল। ৩০ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকছে বিনোদন জগতের শ্যুটিং। সকলকেই হোম কোয়ারান্টাইনে থাকতে বলা হচ্ছে।