অবশেষে করোনামুক্ত হলেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায়। প্রথমসারির সংবাদমাধ্যম সূত্রে তেমনটাই জানা গিয়েছে। বর্তমানে কেমন আছেন অভিনেত্রী। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন আপাতত করোনা মুক্ত তিনি। তবে বার্ধক্যজনিত সমস্যা ছাড়া আর কোনও সমস্যা নেই সন্ধ্যা রায়ের। এমনকী  সংক্রমণেরও কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই অভিনেত্রীর শরীর। শরীরে অক্সিজেনের মাত্রাও স্বাভাবিক রয়েছে। সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে মঙ্গল কিংবা বুধবার বাড়ি ফিরতে পারবেন প্রবীণ অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায়।

আরও পড়ুন-'Covid' আক্রান্তদের জন্য গ্রামের বাড়িতে 'সেফ হোম', গ্রামবাসীদের পাশে দাঁড়ালেন অনিকেত চট্টোপাধ্যায়...

টলিউডে সময়টা যেন মোটেই সুখকর নয়। একের পর এক অভিনেতা-অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন । তেমনই চলতি মাসের শুরুতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে তড়িঘড়ি ভর্তি হয়েছিলেন টলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায়।গত কয়েকদিন ধরেই জ্বর ও শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছিলেন অভিনেত্রী। পাশাপাশি সারা শরীরে ব্যথাও অনুভব করছিলেন তিনি।

 

 

বয়স প্রায় আশির কাছাকাছি। হাসপাতাল সূত্রে খবরে জানা গিয়েছিল আগের তুলনায় শারীরিক অবস্থা অনেকটাই স্থিতিশীল। করোনায় উপসর্গ শরীরে থাকায় বর্তমানে অভিনেত্রীকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। এবং উপসর্গ মেনেই চিকিৎসা শুরু হয়েছে । কোভিড নিউমোনিয়ায় ভুগছিলেন অভিনেত্রী। একসময়কার বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা সাংসদ সন্ধ্যা রায়ের অসুস্থতার খবরে উদ্বেগ ছড়িয়েছিল গোটা টলিপাড়ায়। আপাতত কোভিডকে জয় করেছেন অভিনেত্রী। তার সুস্থতার কামনা করেছেন টলিউড তথা অনুরাগীরা। অভিনেত্রীর অসুস্থতার খবর ছড়াতেই চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল অভিনেতা-অভিনেত্রীদের তথা ভক্তমহলে।  অভিনয়ের পাশাপাশি ২০১৪ সালে রাজনীতির ময়দানেও সফলতা পেয়েছিলেন সন্ধ্যা রায়। তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে মেদিনীপুর কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে লড়ে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী। ২০১৯ সালে বার্ধক্যজনিত কারণে নিজেই সরে দাঁড়ান অভিনেত্রী।  সকলেই বর্ষীয়ান অভিনেত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।