গব্বর-কে এখনও মনে রেখেছে রামগড় সহ গোটা দেশ। এত বছর পরেই শোলে ছবির গব্বরের চরিত্র দর্শকের মনে অমিলন। সেরা খলনায়কের ভূমিকায় অভিনয় করলেও হিন্দি চলচ্চিত্র জগতের নায়ক আমজাদ খান। তাঁর অভিনয় ক্ষমতা আজও সিনেমা প্রেমীদের টেলিভিশনের সামনে আটকে রাখার ক্ষমতা রাখে। ১৯৪০ সালে আজকের দিনেই পেশোয়ারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি। কর্মজীবন ছিল মাত্র ২০ বছরের। তার মধ্যেই ১৩০ টির মত ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। 

আরও পড়ুন- নাচতে নাচতে হঠাৎ স্টেজে পড়ে গেলেন নেহা কক্কর, পরিস্থিতি সামাল দিলেন কী করে

পরাধীন দেশের উত্তর পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের এক পেশোয়ারের এক পরিবারে জন্ম নেন তিনি। বাবা ছিলেন তৎকালীন বলিউডি চলচ্চিত্রের পরিচিত মুখ। সেই সুবাদেই অভিনয় জগতে কাজ শুরু। নেগেটিভ চরিত্র থেকে কমেডিয়ান সবেতেই পারদর্শী তিনি। আমজাদ অভিনীত 'মুকদ্দর কা সিকন্দর', 'ইয়ারানা', 'বরসাত কি এক রাত', 'সত্তে পে সত্তা', 'হম কিসিকে কম নেহি' - মত একের পর এক ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের।

আরও পড়ুনফের অসুস্থ হলেন দীপিকা, জানুন কী হল অভিনেত্রীর

১৯৭৬ সালে আমজাদ খান মুম্বাই-গোয়া হাইওয়েতে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। তিনি গোয়া যাচ্ছিলেন 'দ্য গ্রেট গ্যাম্বলার' সিনেমার শ্যুটিং এর জন্য। গুরুতর আহত হয়ে তিঁনি কোমায় চলে যান। পরবর্তীকালে তিনি রিকভার করলেও কোমায় চলে যান। অসুস্থ থাকাকালীন চিকিৎসার সময়ে ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এর পরবর্তীকালে ১৯৯২ সালে হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয় তাঁর। মৃত্যুর এত বছর পরেও দর্শকের মনে তাঁর অভিনীত চরিত্রের প্রভাব আজও অভূতপূর্ব। এখনও তাঁর অভিনীত ছবি দর্শকের মনে এক আলাদা জায়গায় রয়েছে।