সুশান্তের মৃত্যুর পর তরজা যেন থামছে না। সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার প্রায় একমাস পার হয়ে গিয়েছে। কিন্তু যত সময় এগোচ্ছে ততই যেন রহস্য জট ক্রমশ গাঢ় হচ্ছে। একাধিক মানুষকে জিজ্ঞাসাবাদ ও বয়ান রেকর্ডও করেছে মুম্বই পুলিশ। সঞ্জয় লীলা বনশালি, যশ রাজ ফিল্মসের কর্ণধার আদিত্য চোপড়া সকলকেই পুলিশ বয়ান দিতে হয়েছে। এমনকী পুলিশি জেরার মুখে পরিচালক শেখর কাপুরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে মুম্বই পুলিশ।  যদিও শেখর কাপুর  মুম্বইতে ছিলেন না,  তাই পুলিশের প্রশ্নের জবাব তিনি ই-মেল মারফতই দিয়েছিলেন। এই তিন পরিচালকের নিয়েই শুরু হয়েছে নানা তর্ক-বিতর্ক।

আরও পড়ুন-ভুলতে পারছেন না প্রাক্তন প্রেমিককে, ফের প্রদীপ জ্বালিয়ে সুশান্তের অপেক্ষায় অঙ্কিতা...

যশরাজ ফিল্মসের ব্যানারে শেখর কাপুর পরিচালিত ছবি 'পানি'-তে সুশান্তের অভিনয় করার কথা ছিল। কিন্তু কোনও একটা কারণ বশত তা আর হয়নি। কিন্তু কেন, এর পিছনেও কি অন্য কোনও রহস্য লুকিয়ে রয়েছে, নাকি স্বজনপোষণের কারণে ছবি থেকে বাদ পড়তে হয়েছিল সুশান্তকে। একাধিক বিষয় খতিয়ে দেখছে বান্দ্রা পুলিশ। শেখর কাপুরের ড্রিম প্রজেক্ট 'পানি'। ছবির আনুষ্ঠানিক ঘটনার পর কেটে গিয়েছে এক দশক। তার পরেও কাজ শুরু হয়নি। নিজের ছবির পছন্দের হিরো সুশান্তকে খুঁজে পেলেও তবু তৈরি হয়নি এই হয়নি। কারণ ২০১৫ সালে আচমকাই বিগ বাজেট থেকে সরে যান প্রযোজক সংস্থা যশ রাজ ফিল্মস। হতাশায় দেশও ছেড়েছিলেন শেখর কাপুর। তবে সুশান্তের মৃত্যুর পর একের পর এক চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন শেখর কাপুর। সম্প্রতি সুশান্তকে নিয়ে নয়া চমক দিলেন পরিচালক। টুইটে জানিয়েছেন, সুশান্তকে উৎসর্গ করেই তিনি 'পানি' তৈরি করতে চান। নিজের কাছের মানুষকে এইভাবেই ট্রিবিউট জানাতে চান পরিচালক। দেখে নিন টুইটটি,

 

 

টুইটে শেখর আরও জানিয়েছেন, ঈশ্বর যদি চান,একদিন না একদিন পানি  ঠিক তৈরি হবে। আর সেদিনই ছবিটি সুশান্তকে উৎসর্গ করব। তবে এমন কারোর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ছবিটি তৈরি করব, যার মধ্যে অন্তত নম্রতা থাকবে, আর অহংকারের লেশমাত্র থাকবে না। সুশান্তের মৃ্ত্যুর পরও আবেগঘন টুইট করে শোকপ্রকাশও করেছিলেন শেখর। দেখে নিন টুইটটি,

 


সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই নেপোটিজম মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে।  বলিউডের কিছু উজ্জ্বল ব্যক্তিত্বদের কারণেই মানসিক অবসাদের শিকার হয়েছিলেন অভিনেতা। এবং এই স্বজনপোষণ নীতি তার মৃত্যুর পিছনে দায়ী বলে মনে করছেন একাংশ। অভিনেতার মৃত্যুর পর থেকে নানা প্রশ্নে বিদ্ধ হয়েছে টিনসেল টাউন। প্রভাবশালীদের উপর একের পর এক ওঠা অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত শুরু করেছে মুম্বই পুলিশ।এখনও পর্যন্ত ৩২ জনেরও বেশি পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হয়েছেন। সকলেই তার মৃত্যু নিয়ে সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকী সিবিআই তদন্তেরও দাবি করেছেন।