মার্কিন মুলুকের পাশে দাঁড়াল বলিউড। একে একে সকলে তারকারা জর্জ ফ্লয়েডের খুনের বিচার চাইছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই প্রতিবাদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুললেন কঙ্গনা রনাওয়াত। যেখানে বিতর্ক সেখানেই কঙ্গনা। বলিউডের অধিকাংশ তারকারা এক কথা বললে, কঙ্গনা স্বাভাবিকভাবে তার উল্টো কথা বলবেনই। এবারেও তার অন্যথা হল না। জর্জ ফ্লয়েডের খুনের প্রতিবাদে বলিউড যখন উত্তাল তখান কঙ্গনা বলে উঠলেন, "পালঘর সাধুদের যখন রাস্তায় সকলে মেরে ফেলেছিল তখন তো এদের কাউকে একটা কথা বলতেও শুনলাম না। তাহলে এখন জর্জ ফ্লয়েডের খুন নিয়ে এত মাতামাতি কীসের।"

আরও পড়ুনঃঅক্ষয়ের ছেলের কান মুললেন মোদী, মুহূর্তে ছবি ভাইরাল নেট দুনিয়ায়

ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার, এই হ্যাশট্যাগের সঙ্গেই চলছে গোটা বলিউড। স্বাধীনতার আগের ভারতের যে দাসত্বের কথা মনে পড়ে গিয়েছে কঙ্গনার। তিনি বলেন, "অত্যন্ত লজ্জার বিষয়। নিজেদের ছোট্ট একটা পৃথিবীতে থাকতে পছন্দ করে এরা। পাল্লা যেদিকে ভারি হবে সেদিকেই সবাই চলে যায় অন্ধের মত। দু'মিনিটের জন্য জনপ্রিয়তা লাভ করা যায় এসবে। ভারত স্বাধীন হওয়ার আগে শেতাঙ্গ মানবের দাসত্ব করে এসেছে সকলে। সেই বংশানুক্রমিক জিনই রয়ে গিয়েছে এদের মধ্যে।" 

আরও পড়ুনঃতবে কি গোপনে বিয়ে সারলেন দেবলীনা-গৌরব, ভাইরাল হল 'হানিমুন'-এর ছবি

 

তিনি আরও বলেন, "এই বলিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীরা বাচ্চাদের মত অন্যান্য ঝগড়া, ঝামেলায় গিয়ে নিজেদের মাথা ঘামাবে কিন্তু প্রয়োজনে দেশের পরিবেশ, পরিস্থিতি নিয়ে একটা শব্দও উচ্চারণ করবে না। এদের মধ্যে কয়েকজন আবার পদ্মশ্রীপ্রাপ্ত অভিনেতা-অভিনেত্রী। আমি ওনাদের জীবনের গল্পে অবাক হয়েছি। তবে ওনারা বলিউডে উচিত সম্মান এবং শ্রদ্ধা পাননি। আমার মনে হয়, সাধুদের জন্য প্রতিবাদ করতে বোধহয় বলিডের স্ট্যান্ডার্ডে বাঁধে। ওদের জন্য আওয়াজ তোলা বলি তারকাদের কাছে তেমন ফ্যান্সি নয়।" প্রসঙ্গত প্রিয়াঙ্কা চোপড়া দু'দিন আগে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু নিয়ে আওয়াজ তোলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।