আত্মহত্যায় মৃত্যু নাকি পরিকল্পিত খুন। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য। একের পর এক তথ্য উঠে আসছে ময়না তদন্তের রিপোর্ট এবং পুলিশি তদন্ত থেকে। যদিও মুম্বই পুলিশের পক্ষ থেকে কোনও তথ্যের সত্যতা যাচাই করা হয়নি। বিশ্বস্ত সূত্র মারফত জানা যায়, আগের দিন রাত থেকে কোনও এক অজ্ঞাত কারণে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল সুশান্তের কমপ্লেক্সের সমস্ত সিসিটিভি। যার কারণে পাওয়া যায়নি কোনও ফুটেজ। জানা যাচ্ছে, আগের দিন রাতে কয়েকজন বন্ধু-বান্ধব এসেছিল পার্টি করতে।

আরও পড়ুনঃসূদূর ফ্রান্স থেকে সম্মান, সুশান্তের প্যাশন বলিউড না বুঝলেও শ্রদ্ধা জানাল স্পেস ইউনিভার্সিটি

বাইরে থেকে শোনা গিয়েছিল হই-হুল্লোড়ের শব্দ। এমনকি বেশ রাত অবধি পার্টি চলার পর পরের দিন সকালে বেশ স্বাভাবিক অবস্থাতেই দেখা গিয়েছিল তাঁকে। মারা যাওয়ার ঘন্টা দুয়েক আগে ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ছিলেন তিনি। খোশ মেজাজে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। গরম বেশি থাকা নিয়ে কথা বলেছেন কয়েকজনের সঙ্গে। তবে এ বিষয় কোনও তথ্য মেলেনি, যে তিনি বাড়ির বাইরে বেরিয়ে কমপ্লেক্সের লোকজনদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন নাকি তাঁর ফ্ল্যাটে কয়েকজন চেনা ব্যক্তি উপস্থিত ছিল। 

আরও পড়ুনঃফাঁকা ঘরে সঙ্গী কেবল এই টেলিস্কোপ, বলিউডে সত্যি 'আনফিট' ছিল সুশান্ত

এছাড়াও সূত্রের খবর, গলায় ফাঁস দিতে যে সবুজ কুর্তার ব্যবহার তিনি করেছিলেন তাতে নাকি সুশান্তের কেবল বাঁ হাতের তিনি আঙুলের ছাপ পাওয়া যায়। বুড়ো আঙুল, তর্জনী এবং কেড়ে আঙুল। ডান হাতের কোনও ছাপই নাকি পাওয়া যায়নি সেই কাপড়ে। এক হাতে কোনও মানুষের পক্ষে গলায় ফাঁস দেওয়া সম্ভব নয়। এই তথ্যের ইঙ্গিত দিচ্ছে খুনের দিকে। কোনও কারণে হয়তো ফাঁস ছাড়াবার চেষ্টা করেছিলেন অভিনেতা। সাধারণত এভাবে আত্মহত্যা করলে চোখ বড় হয়ে বেরিয়ে আসে, হাত মুঠো অবস্থাতে থাকে। যার একটিও লক্ষণ সুশান্তের দেহের মধ্যে দেখা যায়নি। এর পাশাপাশি দরজার ডুপ্লিকেট চাবিটিরও হদিশ মেলেনি। মুম্বই পুলিশের তরফ থেকে এ সমস্ত তথ্যের কোনও সত্যতা যাচাই হয়নি এখনও পর্যন্ত।