করোনা আবহের সমস্ত সেটেই গুটিকতক লোক নিয়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে, সমস্ত কিছু স্যানিটাইজ করেই চলছে শ্যুটিং। এর মধ্যে বেঁধেছিল গোল। বলিউড ছবি 'যুগ যুগ জিয়ো'র তারকারা আক্রান্ত হয়েছিলেন কোভিডে। বরুণ ধাওয়ান, নীতু কাপুর, সহ ছবির পরিচালক রাজ মেহতা আক্রান্ত হন এই ভাইরাসে। পরিচালক এবং ছবির মূল অভিনেতা অভিনেত্রীরা কোভিড পজিটিভ হওয়ার পর ছবির গিয়েছে থেমে। জানা যায়, কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর চন্ডীগড়ে কোয়ারেন্টাইনড হন বরুণ।  

সম্প্রতি নীতু কাপুরের একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসে যেখানে তাঁর কোভিড ১৯ আরটিপিসিআর পরীক্ষার প্রকাশ্যে আসে। পরীক্ষাটি একেবারেই সঠিকভাবে করানো হয়নি বলে দাবি সকল নেটিজেনরদের। স্যোয়াব পরীক্ষায় যে লম্বা জিনিসটি নাক এবং মুখের মধ্যে ঢোকানো হয়, তা সম্পূর্ণভাবে নীতুর নাক এবং মুখের ভিতরে যায়নি। অতয়েব স্যোয়াব পরীক্ষার ফলাফল সঠিক আসবে না বলেই অনুমান নেটিজেনদের। এই দায়িত্বজ্ঞানহীনতার জন্য অত্যন্ত ক্ষুব্ধ সকলে। নীতুর বিরুদ্ধে এই নিয়ে আওয়াজ তুলেছে অনেকেই। 

আরও পড়ুনঃরাতের শহরে শ্রাবন্তী লং Bike Ride, কার পিছনে বসে কলকাতা ঘুরছেন অভিনেত্রী

 

কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর নীতু কাপুরকে রণবীর মুম্বই আনার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। তিনি চাননি নীতু চন্ডীগড়ে একা এই অবস্থায় থাকুক। নীতু কাপুরের বয়স ৬২। কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর তাঁকে চন্ডীগডে রাখার সঠিক সিদ্ধান্ত নয় বলেই মনে করছেন রণবীর। মুম্বইতে এনে ডাক্তার এবং হাসপাতালের সঙ্গে কথা বলেই চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রাখা হবে নীতুকে। ফিল্ম সেটের ক্রিউয়েরও ফের কোভিড পরীক্ষা করানো হয়েছে বলেই জানা গিয়েছিল। ছবির মুখ্য অভিনেতাদের মধ্যে একজন অনিল কাপুরের কথায় তিনি কোভিডে আক্রান্ত হননি।