সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতেই রাণু পেয়েছিল লটারি। রানাঘাটের রাণু মণ্ডল এখন প্রত্যেকের কাছেই পরিচিত নাম। তাঁর স্থাবর অস্থাবর, হাঁড়ির খবরও জায়গা করে নিয়েছে  সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। বিগত কয়েকদিনে এভাবেই রাণু নজর কেড়েছে সকলের। কিন্তু যা রটে তার বেষ কিছুটা ভুঁয়োও বটে। 

আরও পড়ুনঃ গনেশ পুজোর উদ্বোধনীতে দুই সাংসদ, একই সঙ্গে সোমবার উদ্বোধনীতে মিমি-নুসরত

সম্প্রতিই খবরের শিরোনামে উঠে এসেছিল এখটাই খবর, রাণুর গান শুনে নাকি ভাইজান উপহারে দিয়েছিলেন একটি আস্ত ফ্ল্যাট। যার দাম মোটের ওপর ৫৫ লাখ টাকা। শুধু তাই সঙ্গে এও শোনা গিয়েছিল যে হিমেশ রেশমিয়ার কাছে গান গাইবার জন্যও নাকি রাণু নিয়েছিল কয়েকলাখ টাকা। সেই তথ্যও ভুল বলে দাবি করলেন অতীন্দ্র। অতীন্দ্রই এখন রাণু মণ্ডলের কাঁন্ডারী। প্রথম থেকেই তিনি রাণুর সঙ্গে রয়েছে, বর্তমানে বিটাউনে রাণু মণ্ডলের সঙ্গে থাকছেন তিনি। এবার তিনিই খোলসা করে জানিয়ে দিলেন বাড়ি কিংবা টাকা কিছুই পাননি রাণু। এই সুযোগটা পেয়েছেন, পরিচিতি সন্মান পেয়েছেন তাই যথেষ্ট। 

আরও পড়ুনঃ সম্পর্কের চারকাহন, আর চার চরিত্রের প্রিয়াঙ্কা একাই একশো

ইতিমধ্যেই রাণু মন্ডলের প্রথম গান রীতিমতন সাড়া ফেলেছে নেট দুনিয়ায়। তেরিমেরি গানের রোশ কাটতে না কাটতেই প্রকাশ্যে এল রাণুর নতুন গান। সেই রেকর্ডিং-এর ভিডিও ভাইরাল হল রাতারাতি। ইনস্টাগ্রামে সেই গানের ভিডিও পোস্ট করে হিমেশ রেশমিয়া জানালেন, আদাত গানটির রেকর্ডিং করলেন রাণু। 

 

 

কয়েকদিন আগেই রাণুর মন্তব্যকে নিয়ে বেশ জল ঘোলা হয়েছিল বিভিন্ন মহলে। যা থেকে ট্রোলও হতে হয় তাঁকে। প্রকাশ্যেই তিনি বলেছিলেন ভগবানের চাকর। এই মন্তব্য করার পরই অতীন্দ্র জানান, রাণুদি নিজের আবেগ সঠিকভাব বুঝিয়ে উঠতে পারেননি। তাই বলে ফেলেছেন। আমরা সকলেই রাণুদির সঙ্গে রয়েছি। তারপর থেকেই ধামা চাপা পড়ে রাণুর মন্তব্য। ফলে বর্তমানে শ্রোতারা মজেছেন রাণুদির গানে।