বলিউড-এ তখন এক পরিবর্তনের সময়। এক নতুন দিশা-তে ডানা মেলছে বম্বে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। আর এই নয়া দিশার নব্য কারিগর হিসাবে তখন উঠে এসেছেন রাজ কাপুর। রূপলী পর্দার জগত তখন সাদা-কালোয় মোড়া। নার্গিস-রাজকাপুর জুটির তখন বক্স অফিসে রমরমা বাজার। তৈরি হচ্ছে শ্রী ৪২০, চোরি চোরি, আঁগ, আওয়ারা, প্রভৃতি ছবি। দুই তারকা বলিউডকে উপহার দিয়েছেন মোটের ওপর ১৬টি ছবি।

'আঁগ' ছবির মধ্যে দিয়েই বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন রাজ কাপুর। বাবা পৃথ্বীরাজ কাপুর তখন থিয়েটারের কাজে মননিবেশ করেছেন। ১৯৪৯ সালে শুরু হয়েছিল রাজ কাপুরের বলিউড সফর। তারপর থেকে বাবার দেখানো পথেই এগিয়েছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, কাপুর পরিবারকে বলিউডে এক পাকাপক্ত জায়গাও করে দিয়েছিলেন তিনি।

তাঁর পুত্র ঋষি কাপুর, রণধীর কাপুর বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন তাঁর হাত ধরে। এঁদেরই হাত ধরে শুরু হয়ে গিয়েছিল বি টাউনের নতুন অধ্যায়। এমনই সময় তিনি নিজের উদ্যোগে তৈরি করেছিলেন আরকে স্টুডিও। সম্প্রতি যা বিক্রি করা হয়েছে গোদরেজ সংস্থার কাছে। ১৯৮৮ সালে প্রয়াত হন রাজ কাপুর। তাঁরই ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি দিয়ে বাবার প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করলেন অভিনেতা ঋষি কাপুর। সঙ্গে শেয়ার করেন বাবার সঙ্গে তোলা নিজের ছোটবেলার একটি ছবিও।