ছবির আদ্যপান্ত জুড়ে রয়েছে অ্যাকশন। সেই সিক্যুয়েন্সই খুব যত্ন সহকারে তৈরি করা হয়েছিল। গ্রিনস্ক্রিন থেকে শ্যুরু করে মডেল তৈরি, ছবির অ্যাকশন দৃশ্য তৈরি হয়েছিল কীভাবে, এবার প্রকাশ্যে এল ছবির সেই না দেখা দৃশ্যগুলো। প্রতিটি পদেই কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে প্রতিটি অভিনেতাকে। ছবির অ্যাকশন ডিরেকশন ছিল কতটা কষ্টের তা এবার নিজে মুখেই জানালেন প্রভাস।

আরও পড়ুনঃ 'স্বল্প পোশাক পরা যায়, অভিনয় করা যায় না' নেটিজেনদের তোপের মুখে দঙ্গল গার্ল

শেয়ার করলেন একটা ভিডিও। সেখানেই ফ্রেমে ধরা দিল পুরো সাহো টিম। প্রতিটি ফ্রেম কীভাবে তৈরি হয়েছে এক ঝল দেখা গেল সেই দৃশ্যও। ক্যামেরার পেছনে থাকা মানুষগুলোও ধরা দিলেন এই ছবির মধ্যে দিয়ে। শ্রদ্ধা কাপুর ও প্রভাসের বেশ কয়েকটি দৃশ্যের শ্যুটিং পর্বেরও দেখা মিলল এই ছবিতে। 

আরও পড়ুনঃ রাণু মন্ডলের পাশে এবার রাখী, নতুন কোন সুযোগ পেতে চলেছেন রাণু

পাঁচ দিনেই এই ছবি বক্স অফইসে আয় করেছে ৩৫০ কোটি টাকা। মুক্তির পর থেকেই সাহো জ্বরে কাবু সকলেই। কিন্তু এরই মাঝে একের পর এক বিতর্কে জড়িয়ে চলেছে সাহো ছবি। ছবি মুক্তির পরের দিনই পোস্টার ঘিরে তৈরি হয় বিতর্ক। কেবল ছবিই নয়, টোকা হয়েছে গল্পও। একের পর এক অভিযোগ উঠে আসতে দেখা যায় সাহো ছবিকে ঘিরে। 

শুধু তাই নয়, নেটিজেনদের মত, কবীর সিং-এর পথে হাঁটলেন সাহো-র মূল চরিত্র অশোক চক্রবর্তী। মেয়েদের সন্মান না দেওয়া, জীবনযাপনের ধরণ নিয়ে কবীর সিং-কে বহুবার পড়তে হয়েছে প্রশ্নে মুখে। এবার সেই একই ধাঁচে শিকার হল সাহো। ছবিতে বেশ কিছু অংশে দেখানো হয়েছে অশোক চক্রবর্তী মেয়েদের সঙ্গে কর্মক্ষেত্রে সুব্যবহার করেন না। সঙ্গে সেখানে এও দেখানো হয় যে মেয়েদের যত্রতত্র স্পর্শ করা, তাঁদের অসন্মান করা হয়েছে। যা থেকে নেটিজেনদের একশ্রেণি প্রশ্ন তোলে এই ভাবে ছবির মাধ্যমে কর্মক্ষেত্রে মেয়েদের অসন্মান করা প্রমোট করা হয়েছে। তার সত্ত্বেও সাহো ঝড়ে টিকল না কোনও ছবি। মুহুর্তের মধ্যে ছবি হল ব্লকবাস্টার।