করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে বাঁচতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। ভারতের বুকে এই মারণ ভাইরাস সর্বাধিক থাবা বসিয়েছে মহারাষ্ট্রে। ফলে সবার আগে এই এলাকাতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সিনেমাহল, জিম, কমিউনিটি হল, কোনও রকমের জমায়েতই যেন না হয়। এর সঙ্গে সঙ্গে একাধিক নিয়মও মেনে চলার কথা বলা হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। 

আরও পড়ুনঃকরোনা থেকে বাঁচতে হাত ধুতে গিয়ে হচ্ছে সাংঘাতিক ভুল, মনে করিয়ে দিলেন মধুমিতা

তবে সকলেই কী সেই কথা মেনে চলছে! এমনটাই প্রশ্ন জাগিয়েছিলেন বলিউড অভিনেতা। একের পর এক ছবির শ্যুটিং বাতিল করা হয়েছে, বাতিল করা হয়েছে জমায়েত। এরই কারণে রবিবার ভক্তদের সঙ্গে দেখা করলেন না অমিতাভ বচ্চন। কিন্তু এত সতর্কতার সত্ত্বেও কি সকলে মেনে চলছে নিয়ম! প্রশ্নের মখে ঠেলে দিয়ে ছিলেন শাহিদ কাপুর। নিষেধাজ্ঞা থাকার সত্ত্বেও খুলিয়েছিলেন জিম। তারই জেরে এবার পেলেন আইনি নোটিস।

আরও পড়ুনঃকরোনা আতঙ্কের মধ্যে বিতর্কে অঞ্জন দত্ত, বিদেশ থেকে ফিরেই যোগ দিলেন জমায়েতে

আরও পড়ুনঃবিপুল ক্ষতির মুখে বিনোদন জগৎ, দিন মজুরের পাশে দাঁড়াল প্রডিউসার্স গিল্ড অফ ইন্ডিয়া

সম্প্রতি বলিউড তারকা শাহিদ কাপুর ও মীরা কাপুরকে দেখা গিয়েছিল জিম মুখি হতে। অথচ সরকারি নোটিস অনুযায়ী মহারাষ্ট্রের সব জিম বন্ধ থাকা উচিৎ। কিন্তু সেদিন শাহিদ কাপুর মীরাকে নিয়ে জিমে গিয়েছিলেন, এবং সেখানে ঘণ্টা দুয়েক সময় কাটান। এই খবর প্রকাশ্যে উঠে আসতেই শুরু হয় শোরগোল। যদিও এই জিমের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, শাহিদ কাপুরের বাড়িতে জিম ছিল না। তিনি বেশ কিছু ইকুইপমেন্ট কিনেছেন। ফলে সেগুলো কীভাবে তিনি ব্যবহার করতে পারেন তা জানতেই গিয়েছিলেন জিমে। তবে এই খবর মুম্বই মিউনিসিপ্যালিটির নজরে আসা মাত্রই তাঁরা আইনি নোটিস ধরালেন শাহিদ কাপুরকে। পাশাপাশি নেট দুনিয়ায় প্রশ্ন উঠেছে শাহিদ কতটা দায়িত্বশীল নাগরিক! সম্পূর্ন বিষয় এখনও মুখ খোলেননি শাহিদ কাপুর।