ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বিমানের মধ্যেই চলছে দেহ ব্যবসা। এমনই গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। মূলত এক বিমান সেবিকা এই কাজ করে থাকে বলে জানা গিয়েছে। এই নিয়ে মুখ পুড়েছে ব্রিটিশ সরকারি উড়ান সংস্থাটির। তড়িঘড়ি তারা এই বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে। তবে এখনও ওই বিশেষ কর্মীকে সনাক্তই করা যায়নি বলে জানা গিয়েছে।

কীভাবে বিমানের মধ্যেই চলত এই অবৈধ কাজ? ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড দ্য সান জানিয়েছে, এক বিমান সেবিকা এই বিষয়ে নিয়মিত সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তাঁর 'পরিষেবাদি'র বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। বিমান ভ্রমণের সময় তাকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দিলেই, যাত্রীরা তাদের পছন্দ মতো বিভিন্ন স্বাদের 'প্রাপ্তবয়স্ক বিনোদন' পাবেন বলে জানিয়েছিল সেই বিমান সেবিকা। সঙ্গে  শেয়ার করতেন নগ্ন পা-সহ নিজের বিভিন্ন খোলামেলা ছবি। শুধু বিমানেই নয়, বিমান থেকে নামার পর কোন হোটেলে গিয়ে অর্থের বিনিময়ে গ্রাহকদের যৌনতার প্রস্তাবও দিত সে।

আরও পড়ুন - মাত্র ৫ বছর বয়সে মা হয়েছিলেন লিনা, চিকিৎসা বিজ্ঞান আজও খুঁজছে উত্তর

আরও পড়ুন - বঙ্গোপসাগরে উড়ে গেল জাহাজ, 'রণবীজয়' থেকে নৌবাহিনী ছুঁড়ল ব্রাহ্মোস

আরও পড়ুন - কৃষক আন্দোলন নিয়ে মোদী বনাম ট্রুডো, 'অভ্যন্তরীণ' বিষয়ে নাক গলাতেই কড়া জবাব পেল কানাডা

ওই বিমানসেবিকার সঙ্গে কথাও বলেছে দ্য সান। সান-এর প্রতিনিধিকে সে জানিয়েছে, মোটা অর্থের মিনিময়ে অনেক বিমানযাত্রীই তার অন্তর্বাসও কিনে থাকে। কোনও হোটেলে তার সঙ্গে রাত কাটাতে চাইলে অর্থের পরিমাণ বেশি দিতে হয়। চাইলে সে নিজেও হোটেলের ঘর বুক করে দিতে পারে।

এই খবর দ্য সান-এ প্রকাশ পেতেই হইচই পড়ে গিয়েছে ব্রিটেনে। অবস্থা সামাল দিতে নেমে পড়েছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ। সংস্থার এক মুখপাত্র বলেছেন, তারা তাদের সকল কর্মীদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ মানের পরিষেবা ও আচরণের প্রত্যাশা করে। যে ঘটনা সামনে এসেছে তা নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। তবে খবর প্রকাশের পরই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ওই বিমানসেবিকা বেশ কিছু পোস্ট মুছে ফেলেছেন।