ব্রেক্সিট নিয়ে টালমাটাল ব্রিটেন। তার মধ্যেই ব্রিটেন এগোচ্ছে সাধারণ নির্বাচনের দিকে।  ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনের জন্য হাতে এত মাসও সময় নেই।  একফোঁটা সময় নষ্ট না করে কনজারভেটিভ ও লেবার পার্টির  সদস্যরা প্রচার শুরু করেছেন।  এরমধ্যেই চমক দিল কনজারভেটিভ পার্টি। ব্রিটেনের অ্যালিন ও ডিসাইড আসনের জন্য কনজারভেটিভ পার্টি ভারতীয় বংশোদ্ভূত সঞ্জয় সেনের নাম ঘোষণা করেছে।  ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনসঞ্জয় সেনকে সমর্থন জানিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। 

লন্ডনের  ওয়েল অ্যান্ড গ্যাস অথরিটি সংস্থার শীর্ষপদে বর্তমানে কর্মরত সঞ্জয় সেন।  এই নির্বাচনের মধ্যেই সঞ্জয় সেনের রাজনীতিতে অভিষেক নতুন নয়। এর আগে, ২০১৫ সালে ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে অ্যাবেরডিন নর্থ আসন থেকে লড়াই করেছিলেন। কিন্তু তিনি ওই নির্বাচনে জয় লাভ করতে পারেননি। এবারের নির্বাচনে স্থানীয় সমস্যাগুলোতে হাতিয়ার করে জোর লড়াইয়ে নেমে গেছেন সঞ্জয় সেন। ব্রিটেনের রাজনীতিতে ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের প্রভাব যথেষ্ট। আগের নির্বাচনে যোগ্যতা থাকার পরেও নির্বাচনে কোনও ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে প্রার্থী করেনি লেবারপার্টি। যার জেরে লেবার পার্টি ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিল বলে জানা যায়।


আগামী মাসেই ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচন। ব্রেক্সিট নিয়ে টালমাটাল পরিস্থিতির মধ্যেই ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ভাগ্যপরীক্ষা হবে। ওয়েলসের ৪০টি আসনেই প্রার্থী দিয়েছে কনজারভেটিভ ও লেবার পার্টি। নাইজেল ফারাজের ব্রেক্সিট পার্টি ৩২টি আসনে প্রার্থী দিয়েছেন। আগের নির্বাচনে যেসব আসনে টোরিরা জয়ী হয়েছেন, ফারাজ সেখানে প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।