করোনা আতঙ্কের মাঝে নমো নমো করে বিয়ের অনুষ্ঠান সেরে ফেলেছিলেন পরিবার লোকেরা। কিন্তু শেষরক্ষা আর হল কই! প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বউভাতের অনুষ্ঠান বাতিল হয়ে গেল বিলেত ফেরত পাত্র-পাত্রীর। আসানসোলের ঘটনা।

আরও পড়ুন: আচমকা দাঁড়িয়ে গেল লরি, বেহুশ চালকের নেই সাড়াশব্দ, আতঙ্ক ছড়ালো রায়গঞ্জে

পাত্রীর বাড়ি আসানসোলে, আর পাত্র তামিলনাড়ুর বাসিন্দা। তবে কর্মসূত্রে দু'জনেই থাকেন কানাডায়। মাস চারেক আগে থেকে জ্যোতি রানার সঙ্গে অরুণ প্রাস্থের বিয়ের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছিল। জানা গিয়েছে, পাত্রীর দিদি ও জামাইবাবুও থাকেন কানাডায়। মাস দেড়েক আগে আসানসোলে চলে আসেন তাঁরা। চেন্নাই থেকে এসেছিলেন পাত্রের বাড়ির জনা দশেক আত্মীয়। শনিবার ছিল মেহেন্দি। রবিবার সকালে বিয়ের পর রাতে বউভাত বা রিসেপশন হওয়ার কথা ছিল। তার আগে ঘটল বিপত্তি। তখনও বিয়ের অনুষ্ঠানই হয়নি, নিমন্ত্রণপত্র বা কার্ড ছবি ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। খবর রটে যায় যে, বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতের সংখ্যা নাকি হাজারেরও বেশি মানুষ! তার উপর পাত্র ও পাত্রী দু'জনেই আবার বিলেত ফেরত। ব্যাস আর যায় কোথায়! দুর্গাপুর-আসানসোল কমিশনারের ফেসবুক পেজে বিয়ের কার্ডটি পোস্ট করে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারাই।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মাঝেই ফিরলেন পর্যটকরা, টুরিস্ট বাস আটকাল প্রশাসন

এদিকে রবিবার আবার করোনা প্রতিহত করতে দেশজুড়ে 'জনতা কার্ফু'-এর ডাক দিয়েছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বয়ং। এই পরিস্থিতিতে সক্রিয়তা দেখায় আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশও। স্থানীয় শিখ কমিউনিটি হলে গিয়ে পাত্র ও পাত্রীর বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলেন পুলিশ আধিকারিকরা। এরপরই রিসেপশনের অনুষ্ঠান বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেন উদ্যোক্তারা। রীতিমতো নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া হয় কমিউনিটি হলের গেটেও।