একের পর এক ঘটনার জেরে শিরোনামে উঠে আসছে তাঁর নাম। তিনি আর কেউ নন, দেশের অন্যতম শিল্পপতি রতন টানা। সম্প্রতি পুনেতে তাঁর সংস্থার এক প্রাক্তন কর্মীর সঙ্গে দেখা করতে তাঁর বাড়িতে পৌঁছে যান। কারণ সেই প্রাক্তন কর্মী দু বছর ধরে অসুস্থ, যার জেরে ছেড়েছেন চাকরিও। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এই ঘটনা চোখে পড়তেই তিনি মুম্বই থেকে পাড়ি দেন পুনেতে। গন্তব্য, সেই প্রাক্তন কর্মীর বাড়ি। সেখান পৌঁছে সেই প্রাক্তন কর্মীর কুশল জেনে রতন টানা দায়িত্ব নেন তাঁর চিকিৎসার। এই ঘটনা ব্যাপক ভাবে ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়াতে।

আরও পড়ুন- এবার থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা দেবে বন্ধন ব্যাঙ্ক

এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে আবার শিরোনামে তিনি। আর এর কারণ হল, রতন টাটার গাড়ির নম্বর ব্যবহার করছিলেন মুম্বইয়ের এক মহিলা। পেশায় তিনিও একজন ব্যবসায়ী। মুম্বই পুলিশ গাড়ির নম্বর জালিয়াতির অভিযোগে ওই মহিলার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে। মুম্বই পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ট্রাফিক নিয়ম লঙ্ঘনের জন্য রতন টাটার গাড়ির বিরুদ্ধে কাটা ই-চালান ওই মহিলার নামে স্থানান্তর করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন- সাবধান, 'WhatsApp'-এর নয়া পলিসি না মানলেই ডিলিট হবে আপনার অ্যাকাউন্ট

রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজের ভিত্তিতে অভিযুক্ত মহিলার গাড়িটি আটক করে মুম্বই পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, যে এই গাড়ির মালিক, অভিযুক্ত মহিলা একটি বেসরকারী সংস্থার পরিচালক। তিনি তার পছন্দের নম্বর প্লেট রাখতেই, আসল নম্বর প্লেটের সঙ্গে এটি বদল করেছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে, ওই মহিলার বিরুদ্ধে মোটরযান আইনের ৪২০ এবং ৪৬৫ ধারায় মামলা করা হয়েছে এবং তদন্ত চলছে।