ডোমজুডের জনসভা থেকে বিজেপি প্রার্থী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে চড়া সুরে আক্রমণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে গদ্দার মীর জাফর বলে তোপ দাগেন। একই সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও সরব হন। তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, আমাকে দশটা শো কজ করলেও কিছু যায় আসবে না।  নির্বাচন কমিশনকে চ্যালেঞ্জ জানান  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভোটের মধ্যেই দেশের কোভিড-পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা, মোদীর ডাকা বৈঠক এড়িয়ে যেতে পারেন মমতা ... R

বৃহস্পতিবার ডোমজুড় বিধানসভার অন্তর্গত দুর্গানগর এলাকায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চড়া সুরেই চ্যালেঞ্জ করলেন জাতীয় নির্বাচন কমিশনকে। তিনি আরও বলেন বিজেপিকে জিজ্ঞেস করুন, ১৫ লক্ষ টাকা আগে দিক তারপর অন্য কথা। তিনি বলেন ২ টাকার চাল ফোটাতে ১০০০ টাকার গ্যাস পোড়াতে হচ্ছে। তিনি বিজেপিকে মিথ্যেবাদীর দল বলেও কটাক্ষ করেন।  তিনি অভিযোগ করে বলেন আজ অবদি কটা অভিযোগ হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে। তিনি রোজ সাম্প্রদায়িক বক্তব্য রাখছেন। তারপরেই তিনি বলেন তাঁর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে ১০টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তারপরেও তিনি আজও হিন্দু, মুসলিম, শিখ ও খ্রিস্টান  সম্প্রদায়ের মানুষকে তৃণমূলকে ভোট দেওয়ার আবেদন জানিয়ে আবারও নির্বাচন কমিশনকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

বেহালায় মিঠুনের রোড শো বাতিল, ফোঁস করে উঠলেন বিজেপির 'কোবরা' প্রচারক ...
ডোমজুড়ো ভোট প্রচারে গিয়েও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মন্ত্রিসভার প্রাক্তন সদস্য রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। তিনি বলেন গত বিধানসভা নির্বাচনেই তাঁকে সরিয়ে দিলে ভালো হত। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি গদ্দার মীর জারফরের সঙ্গেও তুলনা করেন। কিনি বলেন সেচ দফরের অভিযোগ পেয়েই রাজীবকে সরিয়ে দিয়েছিলেন বনদফতরে। কিন্তু সেই সময়ই তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে ভাল হত বলেও মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোটের আগেই তৃণমূল কংগ্রস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায ২০১১ সাল থেকেই ডোমজুড়ের বিধায়ক তিনি। মমতার মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বও তিনি পালন করেছিলেন। কিন্তু দল বদলের পরই একে অপের বিরুদ্ধে চড়া সুরেই আক্রমণ করছেন। 

যশের সমর্থনে CAA হাতিয়ার, চণ্ডীতলা থেকে মমতাকে আক্রমণ যোগী আদিত্যনাথের ..


বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ করে মমতা বলেন এই বাংলা তিনি লড়ে নেবেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সময় গত বছর বিজেপির কাউকে না দেখতে পাওয়ায় কটাক্ষ করে বলেন বিজেপি একটি ভন্ডদের দল। এরা মুখে আর কাজে আরেক কথা বলে। বিজেপিকে ছদ্মবেশী বজ্জাত সাধুর দল বলে কটাক্ষ করে বলেন হরে কৃষ্ণ হরে হরি সংখ্যালঘুদের উপরে হামলা করি। তিনি আবার বলেন আগে দিল্লি সামলা তারপরে সামলাবে বাংলা। তিনি দাবি করেন বিজেপি কোনোদিন বাংলা পাবে না। তিনি বিজেপির প্রতি অভিযোগ করে বলেন জাতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোকে ব্যবহার করছে বিজেপি।  তিনি বলেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে কর্মীদের বলেন বাংলার মা বোনদের উপরে অত্যাচার করলে প্রতিরোধ করুন। ওদের ভয়ে ভয়ে পাবেন না। ভোট না দিয়ে ভোট  নষ্ট করবেন না। তিনি কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিরপেক্ষভাবে কাজ করার আবেদন করেন।