করেনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বেড়েছে। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টা মৃত্যু হয়েছে আরও ১৩ জনের। দেশে মোট করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১২৪।  নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন আরও ৫০৪ জন। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৭৮৯।  সোমবারের তুলনায় মঙ্গলবার আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা হলেও কমেছে। সোমবার আক্রান্তের সংখ্যা  ছিল ৭০৪। 

 

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রাজ্যগুলির মধ্যে সবথেকে খারাপ অবস্থা মহারাষ্ট্র ও তামিলনাড়ুর। এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের তালিকার শীর্ষ রয়েছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯০। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৫ জন জনের। এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪০-এ গিয়ে দাঁড়িয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। আক্রান্তের সংখ্যা ৬২১। তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি। রাজধানীতে ২৪ ঘণ্টায় ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ওপর জোর দিয়েছে কোন্দ্রীয় সরকার। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২১ দিনের লকডাউনের ডাক দিয়েছেন। প্রায় স্তব্ধ ভারতের জনজীবন। করোনাকে হারাতে দেশের অধিকাংশ মানুষই ঘরে রয়েছে। লকডাউনের দ্বিতীয় সপ্তাহে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে রীতিমত উদ্বেগে রয়েছে কেন্দ্রীয়  সরকার। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।তবে গোটা বিশ্বেই করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরিস্থিতি রীতিমত উদ্বেগজনক। এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লক্ষ ৬৩ হাজার ৫৫। মৃত্যু হয়েছে ৭৬ লক্ষেরও বেশি মানুষের। 

আরও পড়ুনঃ 'বন্ধুত্ব প্রতিশোধ নেওয়ার কথা বলে না' নাম না করে ট্রাম্পকে খোঁচা রাহুলের

আরও পড়ুনঃ রাজ্যগুলির লকডাউন বাড়ানোর আর্জি খতিয়ে দেখছে কেন্দ্র, জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকতে পারে স্কুল