হাওড়া জেলার করোনা-পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই মধ্য়ে মিলল সামান্য় স্বস্তি। ১০ দিন পর হাওড়া হাসপাতালের প্রাক্তন সুপারের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এল। একইসঙ্গে ওই হাসপাতালের এমার্জেন্সি মেডিক্যাল অফিসারেরও প্রাথমিক করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে। 

আরও পড়ুন, করোনার কোপ এবার সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোরে, বেলেঘাটা আইডিতে ভর্তি শীর্ষ স্বাস্থ্যকর্তা


জানা গিয়েছে, গত ৯ এপ্রিল করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন হাওড়া জেলা হাসপাতালের ওই প্রাক্তন সুপার। তাঁর লালারসের নমুনা পরীক্ষার পর করোনা পজিটিভ আসে। এরপর  তাঁকে আইসোলেশনে রাখা হয়। তবে এবার আক্রান্তের রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় কিছুটা স্বস্তিতে চিকিৎসকরা। হাওড়া হাসপাতালের  প্রাক্তন সুপার এবং মেডিক্যাল অফিসারের প্রথম রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর ওই দুজনকেই এমআর বাঙুর থেকে অন্য একটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। ফের ওই দুই আক্রান্তের লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। যদিও এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত স্বাস্থ্য ভবনের তরফে সরকারি ভাবে কিছু জানানো হয়নি।

আরও পড়ুন,'রেশন-ব্যবস্থায় রাজনৈতিক দখল একটি অপরাধ', টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ রাজ্যপালের

 উল্লেখ্য়,জানা যায়  তিনি যখন হাওড়া জেলা হাসপাতালের সুপার হিসাবে নিযুক্ত ছিলেন, তখন সালকিয়ার এক মহিলা সেখানে ভর্তি হয়েছিলেন। ওই মহিলা নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ আসে। পরে ওই মহিলার মৃত্য়ু হয়।  এরপর দ্রুত ওই হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীকে গৃহ পর্যবেক্ষণে পাঠানো হয়। তাদের কে দেখতে গিয়েই করোনা উপসর্গ ধরা পড়ে সুপারের। ভর্তি করা হয় এমআর বাঙ্গুরে। ওই ঘটনার পর থেকেই, হাওড়া হাসপাতালে রোগী ভর্তি সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। হাসপাতালটি জীবাণুমুক্ত করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ওই দুই করোনা আক্রান্তের রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় কিছুটা স্বস্তিতে চিকিৎসকরা। তবে ফের ওই দুই আক্রান্তের লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। সেই পরীক্ষায় পাশ করলে পাশ করলে অনেকটা নিশ্চিত হবেন চিকিৎসকরা।

 

 করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্য়ু ক্যানসার রোগীর,আতঙ্ক ছড়াল রাজারহাটের হাসপাতালে

করোনা আক্রান্ত গার্ডেনরিচ থানার শীর্ষ আধিকারিক, স্বাস্থ্য ভবনের তরফে চূড়ান্ত সতর্কতা

কেন্দ্র বলছে ২৮৭, বাংলার হিসেবে রাজ্য়ে করোনা আক্রান্ত ১৬২