ব্যবধান মাত্র কয়েক দিনের। পশ্চিম মেদিনীপুরে করোনা আক্রান্ত হলেন তিনজন। যাঁদের শরীরে সংক্রমণ মিলেছে, তাঁরা একই পরিবারের সদস্য। সকলকেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে।

আরও পড়ুন: রাজ্য়ে মৃত্যু থেমে তিনে,করোনায় আক্রান্ত ৬১

সোনার কাজ করতেন মুম্বইয়ে। ২২ মার্চ বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের নিজামপুর গ্রামের এক যুবক। প্রথমে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে। লক্ষণ সন্দেহজনক হওয়ার রোগীকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে। আইসোলেশন থাকাকালীন করোনা ধরা পড়ে ওই যুবকের। কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তাঁর।  এদিকে এই ঘটনার পর করোনা আক্রান্ত যুবকের বাবাকেও ভর্তি করা হয় মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে।  নিজামপুর গ্রামের ঢোকার রাস্তাটিও সিল করে দেয় পুলিশ। হোম আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেওয়া গ্রামবাসীদের। বৃহস্পতিবার করোনা আক্রান্ত যুবকের বাবা-কে সংক্রামিত বলে ঘোষণা করে স্বাস্থ্য দপ্তর। এবার সেই তালিকায় নাম উঠল স্ত্রী-এরও।

আরও পড়ুন: সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই, বিনামূল্যে গ্যাস সিলিন্ডার পেতে গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন

আরও পড়ুন: "দূরত্ব বজায় রাখুন" প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে বাজারে , ভাইরাল হল যুবকের কীর্তি, দেখুন ভিডিও

জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্তের পরিবারের ছ'জন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল ঘাটালের দাসপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীনই ওই যুবকের স্ত্রীয়ের সন্দেহজনক উপসর্গ দেখা দেয়। আর কোনও ঝুঁকি নেননি স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা, শুক্রবার ওই মহিলা আনা হয় মেদিনীপুর শহর লাগোয়া করোনা হাসপাতালে। সংক্রমণ ধরা পড়ে রবিবার। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন পশ্চিম মেদিনীপুরের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরিশচন্দ্র বেরা।  আক্রান্ত মহিলাকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে।