নেশা যে বড় বালাই! লকডাউন উপেক্ষা করে রাস্তায় বেরিয়েছিলেন এক যুবক। মদ কিনতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে গেলেন তিনি। আইনভঙ্গকারীকে কড়া শাস্তি দিলেন কর্তব্যরত সিভিক ভলান্টিয়াররা। বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালে। 

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত মুম্বই ফেরত যুবক, গোটা গ্রামকে আইসোলেশনে পাঠাল স্বাস্থ্য দপ্তর

লকডাউনে ব্যাহত জনজীবন। ঘরবন্দি হয়ে দিন কাটছেন সাধারণ মানুষের। কিন্তু কতদিন আর এভাবে ঘরে বসে থাকা যায়! নানা অছিলায় রাস্তায় বেরোচ্ছেন অনেকেই। কিন্তু পুলিশ কিংবা সিভিক ভলান্টিয়ারদের নজরে পড়লে আর রক্ষা নেই। আইনভঙ্গকারীদের ছেড়ে কথা বলছেন না উর্দিধারী। তেমনই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালের মনসুখা বাজারে। 

জানা গিয়েছে, লকডাউনের মাঝে এক ফাঁকে সাইকেলে চেপে মদ কিনতে বেরিয়েছিলেন স্থানীয় এক যুবক। মদ কিনে যখন ফিরছিলেন, তখন ঘটে বিপত্তি। শুনসান রাস্তায় টহল দিচ্ছিলেন কয়েকজন কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ার। তাঁদের নজরে পড়ে যান ওই যুবক। ব্যাস আর যায় কোথায়! শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ। তিনি যে মদ কিনতে বেরিয়েছেন, সে কথা স্বীকার করে নেন ওই যুবক। সাইকেলের হাতলে ঝোলোনো ব্যাগ থেকে মদের বোতলও উদ্ধার হয়। বোতলগুলি রাস্তায় ফেলে দেন সিভিক ভলান্টিয়াররা। সাইকেল কাঁধে নিয়ে হাঁটুতে ভর দিয়ে বাড়িতে ফিরতে হয় অভিযুক্ত যুবককে।

আরও পড়ুন: রাজ্য়ে একদিনে দেড় লক্ষ লোককে আলাদা থাকার নির্দেশ স্বাস্থ্য় দফতরের

আরও পড়ুন: এবার করোনায় মৃত্য়ু বেলঘড়িয়ার বাসিন্দার, রাজ্যে সংখ্যা বেড়ে ৬

উল্লেখ্য, লকডাউনে বাজারে এখন এ বঙ্গে মদের চাহিদা তুঙ্গে। হুহু বেড়ে চলেছে দামও। তিন থেকে চারগুণ দাম কালোবাজারি চলছে বাংলার মদের! দ্বিগুণ দামে বিকোচ্ছে বিলিতি মদও। পরিস্থিতি এমনই যে, দ্বিগুণ কিংবা তিনগুণ দামেও মদের কেনার লোকের অভাব হচ্ছে না। এদিকে খদ্দেরদের দেখা নেই সব্জির দোকানে। পসরা সাজিয়ে বেজার মুখে বসে রয়েছেন দোকানি!।