নজির গড়েছেন ভারতবাসী। বিশ্বের সামনে নজির স্থাপন করেছেন তাঁরা। শুক্রবার সকালে লকডাউন নিয়ে ভিডিও বার্তায় এমনই বলতে শোনি গিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। তিনি দাবি করেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশ এখন এটিকে অনুসরণ করছে। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অবশ্য তার প্রমাণ মিলল।  এক মাসের জন্য নিজের দেশে পুরোপুরি লকডাউন ঘোষণা করলেন সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী।

লকডাউন মানছেন না বয়স্ক বাবা, আটকাতে এবার পুলিশে এফআইআর দায়ের ছেলের

নগ্ন হয়ে নার্সের কাছে দাবি করছেন বিড়ি, তবলিগ জামাতে অংশগ্রহণকারীর নিয়ে ফাঁপরে হাসপাতাল

বেলা বোস বাড়িতেই থেকো, সচেতনতা বাড়াতে এবার অঞ্জন দত্তের ভূমিকায় কলকাতা পুলিশ, ভাইরাল হল ভিডিও

বিশ্বের আধুনিক দেশগুলির মধ্যে অন্যতম সিঙ্গাপুর। সেখানেই আগামী ৭ এপ্রিল স্থানীয় সময় মধ্যরাত থেকে শুরু হচ্ছএ এই লকডাউন। জানালেন সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং। আগামী একমাসের জন্য বলবৎ থাকবে এই লকডাউন। এই সময় দেশে কেবল অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা ছাড়া বাকি সমস্ত কিছু বন্ধ রাখা হবে।

 

 

আয়তনের দিক থেকে পৃথিবীর ছোট দেশগুলির মধ্যে অন্যতম সিঙ্গাপুর। ৭২৫.৭ বর্গ কিলোমিটারের এই দেশে জনসংখ্যা ৫৬ লক্ষের থেকে কিছুটা বেশি। তবে জনবসতির দিক থেকে অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ এই দেশ। প্রতি বর্গকিলোমিটারে বাস ২০ হাজার ২১২ জনের। বিশ্বে সচেতন দেশগুলির মধ্যে প্রথম সারিতে রয়েছে সিঙ্গাপুর। সেই কারণে চিনের উহানে গত বছর ডিসেম্বরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর পৃথিবীর উন্নত দেশগুলো বিষয়টিকে  হালকাভাবে নিলেও সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রক তখন থেকেই ব্যবস্থা নিতে শুরু করে। সেই কারণে প্রথম থেকেই চিন থেকে আসা ফ্লাইটগুলির যাত্রীদের স্ক্রিনিং শুরু হয়েছিল সিঙ্গাপুর বিমানবন্দরে। যাত্রীদের ১৪দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখাও বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে স্থলপথ ও সমুদ্রপথে আসা যাত্রীদের জন্য স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করে সিঙ্গাপুর প্রশাসন। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যেতে নিষেধ করা হয়। পাশাপাশি নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটারইজার ব্যবহার করতে পরামর্শ দেওয়া হয়। এতকিছু পদক্ষেপের পরেও সিঙ্গাপুরে বর্তমানে এক হাজারেরও বেশি মানুষের শরীরে পাওয়া গিয়েছে মারণ ভাইরাস। ইতিমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫জনের। তাই শেষপর্যন্ত মারণ করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে মোদীর পথে হেঁটে সিঙ্গাপুরেও লকডাউন ঘোষণা করতে হল লি সিয়েন লুং-কে।