সারা বিশ্ব জুড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সারা দেশে একটানা ২১ দিনের লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। প্রত্যেকেই কোভিড-১৯-এর জেরে গৃহবন্দি। আর এই মারণ ভাইরাসের জেরে বড় ধাক্কা  পড়েছে অর্থনীতির উপর। আর তারই প্রভাব পড়েছে কর্মসংস্থানে। তার ফলেই কর্মহীন হয়ে পড়তে পারে কোটি কোটি মানুষ তেমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে। রাষ্ট্রসংঘের লেবার কমিটি অনুমান করছে শুধুমাত্র এই করোনা ভাইরাসের জেরে কাজ হারাতে পারে ১৯৫ মিলিয়ন মানুষ।

আরও পড়ুন-হটস্পটে থাকা মানেই করোনায় আক্রান্ত তেমনটা নয়, নিজের সুরক্ষায় যা করবেন...

সারা বিশ্ব জুড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সারা দেশে একটানা ২১ দিনের লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। ইতিমধ্যেই একাধিক কারখানা বন্ধ হয়ে গিয়েছে । আর এর প্রভাব আর বেশি করে বাড়বে চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে।গত মার্চ মাসেই ইন্টারন্যাশনাল লেবাক সংস্থা জানিয়েছিল ২৫ মিলিয়ন  মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়তে পারে। আর সেই সংখ্যাটা এবার যেন একধাক্কায় বেড়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন-করোনাভাইরাসে কি সংক্রমিত হতে পারে আপনার বাড়ির পোষ্য বিড়াল, কুকুর, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা...

আরও পড়ুন-করোনাভাইরাস LIVE, করোনায় ইন্দোরে চিকিৎসকের মৃত্যু, ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন বাড়াল ওড়িশা সরকার...


আরও পড়ুন-৩৮১টি সংক্রমণ প্রবণ এলাকা চিহ্নিত মুম্বইতে, আক্রান্তের সংখ্যা ছুঁতে চলল ৭০০ গণ্ডি...

ইতিমধ্যেই মার্কিন মুলুকে বিরাট কর্মী ছাটাইয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর এই আশঙ্কায় রয়েছে এইচ ওয়ান বি ভিসা হোল্ডাররা। এইচ ওয়ান বি ভিসা হল নন ইমিগ্রান্ট ভিসা যার মাধ্যমে মার্কিনসংস্থাগুলি বিদেশিদের নিয়োগ করে যাদের প্রযুক্তিগত ভাবে বিশেষ দক্ষতা রয়েছে। যার জন্য বেশ কিছু মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থা নির্ভর করে থাকে ভারত এবং চিন থেকে আসা হাজার হাজার কর্মীদের উপর। বর্তমান ব্যবস্থায় এই এইচ ওয়ান বি ভিসা যাদের আছে‌ তারা ‌ চাকরি চলে গেল তার ৬০ দিনের মধ্যে পরিবারসহ সমস্ত কিছু নিয়ে ইউ এস ছাড়তে হয়। 

করোনা ভাইরাসের জেরে যেভাবে ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে তাতে আগামী দিনে ভবিষ্যতে সেখান থাকা নিয়ে ইতিমধ্যেই চিন্তিত হয়ে পড়েছে ভারতীয়। তারা ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে চাকরি না থাকলেও সে দেশে থাকার অনুমতি ৬০ থেকে বাড়িয়ে ১৮০ দিন করার আবেদন জানিয়েছে। অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন ‌ করোনা সংকটের জেরে মার্কিন অর্থনীতি ভেঙে পড়ার কারণেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাপক হারে কর্মী ছাঁটাই হতে পারে। আর সেটা আগামী কয়েক সপ্তাহ অথবা কয়েক মাসের মধ্যেই হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সমীক্ষা বলছে গত মার্চ শেষ সপ্তাহে ৩.৩ মিলিয়ন মার্কিনী কাজ হারিয়েছেন।‌