করোনাভাইরাসের ভয়াল সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে স্পেনে। শুক্রবার সরকারি হিসেবে বলা হয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজারের বেশি। করোনাভাইরাসে সংক্রমণ থেকে রীতিমত মৃত্যু মিছিল শুরু হয়েগেছে এই দেশে। এখনও পর্যন্ত ৬৫০-এর বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। দেশের সবকটি হাসপাতালেই চূড়ান্ত ব্যস্ততা। হাসপাতালে ভর্তির লাইন ক্রমশই লম্বা হচ্ছে। কিন্তু কিছুতে পরিস্থিতি সামাল দিতে পারছে না স্পেশন। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে গৃহযুদ্ধ ও পরবর্তী সময় ছাড়া এত মৃ্ত্যু কখনও দেখেনি স্পেন। 

পরিস্থিতি মোকাবিলায় রীতিমত কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে স্প্যানিশ সরকার। স্থানীয় চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হাসপাতালে শয্যার অভাব হলে বয়স্কদের থেকে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে তরুণদের। কাদের আগে চিকিৎসা দেওয়া হবে তার প্রাথমিকভাবে স্থির করবেন সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরাই। সরকারের তরফ থেকে জারি করা হয়েছে নতুন গাউড লাইনও। একই সঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, হাসপাতাল শয্যা ভেন্টিলেটার, মেডিক্যাল কিট সহ প্রয়োজনী দ্রব্যের রিতীমত অভাব রয়েছে স্পেনে। তাই কিছুটা বাধ্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।  দেশে আক্রান্ত হয়েছেন বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীও। তিন সপ্তাহ আগে থেকেই এই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যআ বাড়়ছিল। দেশের নাগরিকদের সচেতন হওয়ার জন্য একাধিকবার আবেদন জানান হয়েছিল। কিন্তু আগে তেমন গুরুত্ব দেওয়া হয়নি বলেই অভিযোগ। তাই বর্তামানে পরিস্থিত হাতের বাইরে চলে গেছে। 

আরও পড়ুনঃ করোনা মোকাবিলায় সাহায্যের আর্জি , জিংপিং-এর সঙ্গে টেলিফোনে কথা ট্রাম্পের

আরও পড়ুনঃ যুবরাজের পর প্রধানমন্ত্রীও, করোনাভাইরাস হানায় কাবু ব্রিটিশ শীর্ষ নেতৃত্ব

আরও পড়ুনঃ করোনা মোকাবিলায় লকডাউন, আার তাতেই পরিষ্কার ভারতের আকাশ-বাতাস

করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত সবথেকে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। অবিলম্বে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না এলে কোথায় থামবে স্পেনের মৃত্যু মিছিল তা নিয়ে রীতিমত অশনিসংকেত দেখছে স্প্যানিশ প্রশাসন। শুক্রবার পাওয়া হিসেব অনুযায়ী বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষ ছা়ড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজারের বেশি মানুষের।